আপডেট : ৪ মার্চ, ২০১৬ ২০:৩৫

নামার সময় বিমানের আলো কেন নেভানো থাকে ?

বিডিটাইমস ডেস্ক
নামার সময় বিমানের আলো কেন নেভানো থাকে ?

বিমানে অনেকে হামেশাই সফর করেন। কিন্তু জানেন কি, বিমানবন্দরে নামার সময় কেন বিমানের ভিতরের আলো নিভিয়ে দেওয়া হয়? বিমানে সফরের সময় কেউ বই পড়েন, কেউ বা গান শোনেন মোবাইলে। নামার সময় দুম করে আলো নিভিয়ে দেওয়ার কারণ হিসাবে যাত্রীদের অনেকের যুক্তি যে, মনোসংযোগ নষ্ট করার জন্যই এ রকম করা হয়! আবার এই ধারণাও শোনা গিয়েছে যে, বিমানের ফাইনাল টাচ ডাউনের আগের মুহূর্তে যাত্রীদের সারপ্রাইজ করার জন্য এটা নাকি কর্মীদের একটা কারসাজি মাত্র। এ সব যাত্রীদের মুখে মুখে প্রচারিত কয়েকটি ধারণা মাত্র।

কেন লাইট নিভিয়ে দেওয়া হয়, সেই রহস্য প্রকাশ্যে এনেছেন এক পাইলট। তিনি জানান, এটা কোনও কারসাজি বা সারপ্রাইজ নয়। অন্ধকারের সঙ্গে যাত্রীদের চোখ মানিয়ে নিতেই এই পদ্ধতি মেনে চলা হয়। তিনি আরও জানান, ধরুন আপনাকে একটা অপরিচিত ঘরে ঢুকিয়ে দেওয়া হল। আপনি ঢুকলেন। তার পরই ঘরের লাইট নিভিয়ে দেওয়া হল। এবং বলা হল অন্ধকারের মধ্যে ঘর থেকে বেরিয়ে যেতে। কী হবে, আপনি নিশ্চয়ই জানেন। অন্ধকারে হাতড়াবেন। সে রকমই বিমান একটি অপরিচিত ঘর। নামার সময়ে হঠাত্ আলো নিভিয়ে দেওয়া হয় যাতে বড়সড় কোনও ঘটনা ঘটলে অন্ধকারের মধ্যে বেরিয়ে আসতে পারেন যাত্রীরা। আর বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই দেখা গিয়েছে, বিমান নামার সময় দুর্ঘটনা ঘটে। তাই অন্ধকারের সঙ্গে চোখকে মানিয়ে নিতে নামার সময় বিমানের আলো নিভিয়ে দেওয়া হয়। যাতে যাত্রীরা অন্ধকারে নিজেদের উদ্ধার করতে পারেন। দিনের বেলায় যাত্রীদের চোখে ব্লাইন্ডফোল্ড দিয়ে রাখতে বলা হয়। যাতে বিমানের জানালা দিয়ে বাইরের যে আসে সেটাকে এড়ানো সম্ভব হয়।

উপরে