আপডেট : ২৫ মার্চ, ২০১৬ ১৬:৩৭

কৌশলে খাওয়ালে খাবে শিশুরা

কিডস্
কৌশলে খাওয়ালে খাবে শিশুরা

না! খাব না! খাব না!... এটা যেন আজকালকার বাচ্চাদের অভ্যাস হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর এ নিয়ে অভিভাবকেরও চিন্তার শেষ নেই। শরীরে কোনো সমস্যা আছে কিনা, ভেতরে কোনো অসুখ বাসা বেঁধেছে কিনা, কিভাবে খাওয়ালে খাবে নানা চিন্তা। এ সম্পর্কে গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজের শিশু বিকাশ ও সামাজিক সম্পর্ক বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক গাজী হোসনে আরা বলেন, শিশুর খাবারে অরুচি থাকলে বা খেতে না চাইলেই যে অসুস্থ তা কিন্তু নয়। অনেক ক্ষেত্রেই খাবার মেনু পছন্দ না হলে, একই খাবার বারবার পরিবেশন করলে, খাবার দেখে আকৃষ্ট না হলে, বারবার খাওয়াতে চাইলেও খেতে চায় না। তাই বোঝার চেষ্টা করুন আপনার শিশু কেন খেতে চাইছে না। খাবার পরিবেশন কৌশলেও নতুনত্ব আনুন। আবার অনেক সময় দেখা যায় বাবা-মা শিশু খেতে চাইছে না এই বিষয়টি নিয়ে একটু বেশিই ভাবেন। তারা প্রয়োজনের অতিরিক্ত খাওয়ানোর জন্য চাপাচাপি করেন। ফলে তার খাবারের প্রতি আরও বেশি অনীহা চলে আসে। তাই আপনার শিশুর আরও বেশি খাওয়া উচিত কিনা তা বুঝতে প্রথমে ওর ওজন পরীক্ষা করুন। যদি বয়স ও উচ্চতা অনুযায়ী ওজন স্বাভাবিক থাকে দুশ্চিন্তা করার কিছু নেই। ওর চাহিদামতো খাবার ও ঠিকই গ্রহণ করছে। আর যদি ওজন কম হয়, তবে ও আসলেই কম খাচ্ছে বা প্রয়োজনীয় পুষ্টির অভাব হচ্ছে। সেক্ষেত্রে অবশ্যই শিশুর পছন্দের খাবার খাওয়াতে হবে, পরিবেশন কৌশলে পরিবর্তন আনতে পারেন। এতে খাবারে রুচি ফিরে আসবে।

http://ritssms.com/ads/server/adserve/www/delivery/lg.php?bannerid=480&campaignid=96&zoneid=780&source=jugantor.com&OXLIA=1&loc=1&referer=http%3A%2F%2Fwww.jugantor.com%2Fold%2Fout-of-home%2F2014%2F04%2F01%2F83300&cb=d71f4e1a14*পরিবারের সবার সঙ্গে একটু একটু করে খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন। প্রতি বেলায় বড়দের খাওয়ার সময় তাকেও সবার সঙ্গে বসিয়ে দিন। এতে তার সময়মতো খাওয়ার অভ্যাস তৈরি হবে।

* একই ধরনের খাবার ঘুরে ফিরে খাওয়ালে খাওয়ার প্রতি অনীহা চলে আসে। তাই খাবারে বৈচিত্র্য আনুন। একটি পছন্দ না করলে অন্য ধরনের খাবার দিয়ে চেষ্টা করুন।

* শিশুকে নিজের রুচি ও সময়মতো খেতে দিন। জোর করে খাওয়াবেন না। জোর করলে খাওয়ার প্রতি এক ধরনের ভীতি তৈরি হবে। তখন আর সে খাবারের কাছে যেতে চাইবে না। বরং নানা কৌশলে ব্যস্ত রেখে যেমন খেলনা দিয়ে, কার্টুন দেখিয়ে, গল্প বলে খাওয়ানোর চেষ্টা করতে পারেন।

* খাওয়ার মেনু পরিবর্তন করুন। সবজি, মাছ, ফল, দুধ দেখলে শিশুরা খেতে চায় না। তবে পুষ্টির চাহিদা পূরণ করতে এগুলো খাওয়া জরুরি। তাই বারবার একইভাবে এগুলো খেতে না দিয়ে সবজির কাটলেট, ফিশ বল, স্যুপ, ফ্রুটস কাস্টার্ড, ফ্রুটস পায়েস, ফালুদা, সবজির চপ নানাভাবে তৈরি করুন।

* পরিবারের বড়রা যে খাবার খাচ্ছে, সেটাকে কম ঝাল দিয়ে একটু নরম করে খেতে দিন। এতে তার বড়দের মতো করে খাওয়ার অভ্যাস গড়ে উঠবে।

* অনেক সময় শিশুরা ভাত খেতে চায় না, তাই মাঝে মধ্যে সবজি দিয়ে খিচুড়ি রান্না করে খাওয়াতে পারেন।

*ঘুমের সময় দুধ খাওয়ালে পেট ভরে থাকায় ঘুম থেকে উঠলে আর খেতে চায় না।

* ফাস্টফুড, চিপস, চকলেট, আইসক্রিম বেশি খেলে ক্ষুধা নষ্ট হয়ে যায়। তাই এসব কেনা খাবার থেকে যতটা সম্ভব দূরে রাখুন।

* দু-এক মাস পরপর ওজন পরীক্ষা করুন।

* শিশুকে নিয়ম মেনে খাওয়ার অভ্যাস করুন। কিছুক্ষণ পরপরই এটা-ওটা খেতে না দিয়ে একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করুন।

* অনেক শিশুই বাসায় খেতে না চাইলেও স্কুলের টিফিন বন্ধুদের দেখাদেখি ঠিকই খায়। তাই টিফিনে পুষ্টিকর খাবার দেয়ার চেষ্টা করুন।

* খাবার তৈরির আগে জিজ্ঞেস করে নিতে পারেন সে কী খেতে চাইছে।

* খাবার প্লেটে দেয়ার সময় আকর্ষণীয়ভাবে সাজিয়ে দিন। তাহলে তা দেখেই খাওয়ার প্রতি আগ্রহী হয়ে উঠবে।

উপরে