আপডেট : ১৭ মার্চ, ২০১৬ ১৭:৪১

জাতীয় শিশু দিবসে আজ হয়ে গেল ‘চিলড্রেন আর্ট ফেস্ট’

অনলাইন ডেস্ক
জাতীয় শিশু দিবসে আজ হয়ে গেল ‘চিলড্রেন আর্ট ফেস্ট’

চৈত্রের আজকের সকালটা শিশুদের সমবেত কণ্ঠে জাতীয় সঙ্গীতের দ্বারা শুরু হল।  এর রেশ কাটতে না কাটতেই দরাজ গলার ডাক। শুরু হয় গোষ্ঠের গান।  সকাল নয়টায় মঞ্চে ওঠেন কুষ্টিয়া থেকে আগত বাউলশিল্পীরা। গোষ্টগীতি চলতে চলতেই ভরে ওঠে শিশুদের  জমায়েত। স্বাগত বক্তব্য পর্ব শেষে সোয়া দশটা নাগাদ শুরু হয়ে যায় উন্মুক্ত চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা। রঙ, পেন্সিল, তুলি আর ক্যানভাস নিয়ে ব্যস্ত  হয়ে যায় দেড়শতাধিক শিশু শিল্পী। 

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর পল্লবীর ৩২ নম্বর সড়কে এভাবেই শুরু হয়েছে চিল্ড্রেন আর্ট ফেস্ট। সেন্টার ফর এডভান্স নারচারিং এন্ড ভিজ্যুয়াল আর্ট স্টাডিজ (ক্যানভাস) এবং নেসন হাট লিমিটেডের উদ্যোগে চতুর্থবারের মতো আয়োজিত ‘ক্যানভাস আর্ট ফেস্ট ২০১৬’ শীর্ষক দিনব্যাপী। 

উৎসবে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ক্যানভাসের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান কাজী মোস্তফা আলম (এফসিএ)। এর আগে বাউল শেখ শামীম রেজা ও তার দল গোষ্ঠগীতি পরিবেশন করেন। বিকেল নাগাদ উৎসবে অংশ নেবেন র্কাটুনিস্ট আহসান হাবীব, আনুশেহ আনাদিল, শিল্পী, কবি ও নির্মাতা টোকন ঠাকুর, মিডিয়াকর্মী এশা ইউসুফ, নির্মাতা সামির অহমেদ, স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব ইলিয়াস উদ্দিন মোল্লাসহ আরো অনেকে।

বেলা সোয়া ১২টা নাগাদ শেষ হয় চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগীতা। সন্ধ্যায় পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের পর থাকছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। গান গাইবেন শোয়েব, রিজভী, কুয়াশাসহ আরো অনেকে। এছাড়াও থাকছে জলপুতলের পাপেট শো। উৎসবে শিশু কলাকারদের তৈরী  ছাপচিত্র, টেরাকোটাসহ অর্ধশত শিল্পকর্ম প্রদর্শিত হচ্ছে। দুপুরের পর এ প্রদর্শনীতে উন্মুক্ত চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগীতায় অংশ নেয়া শিশুদের চিত্রকর্মও স্থান পায়। 

‘ক্যানভাস’ -এর নিজস্ব ক্যাম্পাস সংলগ্ন সড়কে চলমান এ শিশুশিল্প উৎসবের ব্যাপারে আয়োজকদের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, এর উদ্দেশ্য শিশুশিল্পীদের মনোজগতের মনন ও ভাবপ্রকাশের বিজ্ঞানকে একটুখানি উসকে দেয়া। এ উপলক্ষে চার সপ্তাহের এক আর্ট ক্যাম্পের আয়োজন করা হয়েছিলো। গত ২০ ফেব্রুয়ারি শুরু হওয়া এই ক্যাম্পটি শেষ হয় গত ১২ মার্চ। যাতে প্রায় চল্লিশটি শিশু অংশ নেয়। কর্মশালায় গুরু-শিষ্যদের যৌথ প্রচেষ্টায় তৈরী হয়েছে একের পর এক শিল্পকর্ম। উৎসবে মূলত ওই শিল্পকর্মগুলোই প্রদর্শিত হচ্ছে।  

উল্লেখ্য, প্রতিষ্ঠালগ্ন (২০১৩) থেকেই বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনে এমন উৎসব আয়োজন করে আসছে ‘ক্যানভাস’।

 

 

উপরে