আপডেট : ১৩ মার্চ, ২০১৬ ২০:২৬

গরমে ছোটদের পোশাক

বিডিটাইমস ডেস্ক
গরমে ছোটদের পোশাক

গরম এসেছে, প্রকৃতি-রূদ্রমূর্তি ধারণ করেছে। মাঝে মধ্যে সামান্য বৃষ্টি হলেও তার বদলে আকাশ যেন গরম ঢেলে দিচ্ছে প্রকৃতিতে। ভ্যাপসা গরমে জনজীবন অতিষ্ঠ। এমন সময়ে বড়দেরই হাঁসফাঁস ধরে যাচ্ছে, তখন ছোটদের কি অবস্থা হচ্ছে তা বলাই বাহুল্য। প্রকৃতির অনাচার সহ্য করা তাদের জন্য কষ্টের।

এ গরমে শিশুদের সুস্থ রাখতে মায়েদের সচেতনতা জরুরি। শিশুদের সুস্থতার স্বার্থে তার খাবার, গোসল, ঘুমের মতো প্রয়োজনীয় কাজ সম্পাদন করার পাশাপাশি খেয়াল রাখতে হবে আবহাওয়া অনুযায়ী তার পোশাক পরানোর দিকটিতেও।

গরমে শিশুর পোশাক নির্বাচন করার আগে খেয়াল রাখতে হবে তাপমাত্রা উঠানামার প্রতি। গরমে শিশুর পোশাক নির্বাচনে সূতি কাপড়ের বিকল্প নেই। গরমে শিশুর পোশাক হবে সূতি কাপড়ের একদম হালকা পাতলা। আঁটি-সাঁটি কাপড় না পরিয়ে খোলামেলা রাখার চেষ্টা করতে হবে। ঢিলেঢালা পোশাকের প্রতি গুরুত্ব দিতে হবে। তাতে শিশু আরাম পাবে।

গরমে শিশুর পোশাক নির্বাচনের সময় কাপড়ের রঙের দিকে খেয়াল রাখবেন অবশ্যই। পোশাকের রঙ সব সময় হালকা নির্বাচন করার চেষ্টা করবেন। রঙিন বা গাঢ় রঙের কাপড় সহজে তাপ টেনে নেয়। এতে বেশি গরম অনুভূত হয়। তাই রঙিন এবং গাঢ় কাপড়ের বদলে পাতলা এবং হালকা রঙের কাপড় ব্যবহার করুন।
চাপা সাদা, হালকা গোলাপী, হালকা বেগুনি, হালকা নীল, বাদামী, আকাশী, হালকা হলুদ, দূসর সবুজ ও লেবু রঙের পোশাকগুলো এ গরমে প্রাধান্য পাবে। গরমে থাকা ও অন্যান্য হালকা রঙের পোশাক তাপ শোষণ করে না উপরন্ত চোখকে দেয় প্রশান্তি।

নবজাতকের ক্ষেত্রে এই গরমে আদর্শ পোশাক হতে পারে নিমা। এটি সূতি কাপড় দিয়ে তৈরি এক ধরনের ফতুয়ার মতো পোশাক। অনেকে নিমায় ফিতা ব্যবহার করেন, কেউ ব্যবহার করেন বোতাম। তবে নবজাতক যেহেতু অনেক বেশি নাজুক তাই তার পোশাকে বোতামের ব্যবহার তার জন্য ক্ষতিকর হতে পারে। বোতামের বদলে ফিতা দিয়ে বাধা নিমার ব্যবহার করতে পারেন।

শিশুদের পোশাক নির্বাচনে তাদের মতামত গুরুত্ব দিয়ে পোশাক বাছাই করাই ভাল। সে ক্ষেত্রে শিশুর মনটা পোশাক কেনার সময়ই ভরে যায়। মেয়ে শিশুদের পোশাক নির্বাচনে নকশা ও কাটিং এ একটু ভিন্নতা আনতে হয়। মেয়ে শিশুদের পাইপিন বর্ডার লেস দিয়ে কাটিং এ ভিন্নতা আনা যায়।

আর গরমের দিনে শিশুকে নিয়ে ঘুরতে গেলে অবশ্যই বাড়তি পোশাক ব্যাগে নিতে হবে। গরমে শিশুকে একটি পোশাক দীর্ঘক্ষণ পরিয়ে রাখা ঠিক নয়। গরমের সময় খুব দরকার না পড়লে ডায়াপার ব্যবহার করবেন না। কারণ সিনথেটিক এ ন্যাপির ব্যবহার শিশুর র‌্যাশ দেখা দিতে পারে। যেহেতু শিশুদের ত্বক খুব বেশি নরম এবং নাজুক তাই র‌্যাশ থেকে অনেক সময় ঘা হয়ে রক্তপাতও হতে পারে। তাই খুব বেশি দরকার না পড়লে শিশুকে খোলামেলা রাখুন। দরকার পড়লে কাপড়ের তৈরি ন্যাপি ব্যবহার করুন।

পোশাক নিয়ে ফ্যাশন ডিজাইনাররা বলেন, শিশুদের পোশাক নির্বাচনের সময় অভিভাবককে সবসময় সচেতন থাকতে হবে। ঢিলেঢালা এবং হালকা রঙের পোশাক হলেই ভাল হয়। শিশুর পোশাকের নকশা ও কাজ মোটেই ভারী হয় না। যত হালকা রাখা যায় শিশুর জন্য ততই স্বস্তিদায়ক। শিশুর পোশাক কেনার আগে হালকা মোটিক কাজ ও কাপড়কে প্রাধান্য দিতে হবে।

গরমের দিনে শিশুদের পোশাকের বিষয়ে গাইনি এবং শিশু রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. আফরোজা বানু বলেন, শিশুদের সহ্য ক্ষমতা কম বলে গরম কিংবা একটু শীতে তারা অসুস্থ হয়ে পড়ে। এ জন্য গরম কিংবা ঠা-ায় বাবা-মাকে বিশেষ করে মাকে শিশুর পোশাকের প্রতি একটু যতœবান হতে হবে। এই গরমে একটু সচেতন না থাকলে পোশাকের কারণে শিশু অসুস্থ হতে পারে। গরমে সাবধান থাকুন-ঢিলেঢালা এবং আরামদায়ক পোশাক পরান এতে করে শিশু সুস্থ থাকবে।

তাই বলি গরমের সময়ে শিশুর অন্যান্য দরকারের পাশাপাশি পোশাকের দিকে খেয়াল রাখলে শিশুর সমস্যা অনেকাংশে কম হবে এবং সুস্থ থাকবে আপনার শিশু।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/এসএম

উপরে