আপডেট : ১ মার্চ, ২০১৬ ১৮:৫৪

শরীরের বাহিরে হৃৎপিণ্ড নিয়ে জন্ম যে শিশুর

বিডিটাইমস ডেস্ক
শরীরের বাহিরে হৃৎপিণ্ড নিয়ে জন্ম যে শিশুর

পৃথিবীতে কতইনা আজব এবং অবিশ্বাস্য ঘটনা ঘটে। এর অনেক ঘটনাই এতটাই অবাক করা যে মাঝে মধ্যে থমকে দাড়াতে হয়। আজ সেরকম একটি ঘটনার কথা জানবো।

প্রকৃতির অনেক নির্মম পরিহাস অনেক সময় বাস্তবতা কেউ হার মানায়। তবে এটি বাস্তব এক ঘটনা। জন্মের সময় থেকে ছোট্ট এই শিশু তার হার্ট বুকের বাহিরে নিয়ে জন্ম নিয়েছে।

শিশুটির নাম ভিরসাভিয়া বাথসেবা বরুণ গঞ্ছারোভা। শিশুটি যখন তার পায়ের গর্ভে ছিল তখন তার নানী তার মা’কে বলেছিলেন, এই শিশু বেঁচে থাকতে পারবে না। আজ ছয় বছর বয়সে এই অলৌকিক শিশু জীবন যুদ্ধে জয়ী হয়ে বেঁচে আছে।

শিশুটির একটি বিরল জন্মগত রোগ রয়েছে। প্রায় ১০ লক্ষ শিশুর মাঝে মাত্র একটি শিশুর এরকম রোগ হয়ে থাকে। তার পেন্টালজি অফ ক্যানট্রেল নামক রোগ রয়েছে।

এই রোগের লক্ষণ বিভিন্ন ধরণের হতে পারে। এর উপসর্গ ও ব্যাধি ব্যাপকভাবে পরিবর্তিত। কিন্তু ভিরসাভিয়ার এক্ষেত্রে সমস্যা হল তার হৃদয় ও অন্ত্র উভয় তার বুক ও পেটের বাহিরে অবস্থিত। অর্থাৎ তার সেই অঙ্গসমূহ শরীরের বহিরাগত।

ভারসাভিয়ার হৃৎপিণ্ডের স্পন্দন খুব স্পষ্টভাবে দেখা যায়। কারণ তার হার্টের উপর হালকা একটি চামড়ার স্তর রয়েছে শুধু।

তার এতো বড় ধরণের রোগ থাকার পরও সে দমে যায়নি। ক্রাউড ফান্ডিং একটি পেজ থেকে জানা যায়, ভারসাভিয়া পনি ও ডলফিনকে ভালবাসে, অংকন করা, গান করা, নাচ শেখা এবং অন্যান্য শিশুদের মত বিভিন্ন কজ করতে পছন্দ করতে।

পোশাক পরিধান করার পর তাকে দেখলে আপনি বুঝতে পারবেন না যে সে নিত্যদিন এতো বড় একটি রোগের পেছনে ছুটছেন। শিশুটি মূলত রাশিয়ার নাগরিক। কিন্তু তারা ইতিমধ্যে আমেরিকায় স্থানান্তরিত হয়েছে।

বোস্টনের একটি হাসপাতাল থেকে তার চিকিৎসার জন্য সাহায্য করার কথা জানালে তার পরিবার আমেরিকায় চলে আসেন। বোস্টনের শিশু হাসপাতালের ডাক্তার তার চিকিৎসা করবে বলে জানা যায়। কিন্তু তারা জানিয়েছেন, আগামী দুই বছরের মাঝে তার কোন অপারেশন করা যাবে না। কারণ তার উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা রয়েছে।

ভারসাভিয়া তার হার্টের বিষয়ে বলেন যে, যীশু মাঝে মাঝে কিছু বিশেষ সৃষ্টি করে, তার মাঝে তিনিও একজন।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/এসএম

উপরে