আপডেট : ১১ মার্চ, ২০১৬ ০৯:৫১

নৌবাহিনী চাকরির সুযোগ, কমিশন্ড অফিসার পদে লোক নিয়োগ করা হবে

বিডিটাইমস ডেস্ক
নৌবাহিনী চাকরির সুযোগ, কমিশন্ড অফিসার পদে লোক নিয়োগ করা হবে

অনেকেরই স্বপ্ন থাকে নৌবাহিনীতে চাকরি করার। আর এই স্বপ্নকে বাস্তবে রূপান্তরিত করার সময় এসেছে এখন। সম্প্রতি এই বাহিনীতে কমিশন্ড অফিসার (২০১৬-বি ডিইও ব্যাচ) পদে লোক নিয়োগ করা হবে বলে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। এ পদে কয়েকটি শাখায় লোক নেওয়া হবে। এর মধ্যে ভলান্টিয়ার রিজার্ভ কমিশন এক্সিকিউটিভ শাখা, ইঞ্জিনিয়ারিং ও ইলেকট্রিক্যাল এবং শিক্ষা শাখায় লোক নিয়োগ করা হবে। আবেদন করতে হবে আগামী ২০ মার্চের মধ্যে।

আবেদনের যোগ্যতা
বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী এ পদে আবেদন করতে হলে এক্সিকিউটিভ শাখার প্রার্থীদের পদার্থবিদ্যা ও গণিত বিষয়ে অন্তর্ভুক্তিসহ স্নাতক অথবা পদার্থবিদ্যা/ গণিত/ রসায়ন/ কম্পিউটার সায়েন্স/ অ্যাপ্লাইড ফিজিকস/ অ্যাপ্লাইড ফিজিকস ও তড়িৎবিদ্যা/ অ্যাপ্লাইড কেমিস্ট্রি/সমুদ্রবিজ্ঞান/নটিক্যাল বিষয়ে সম্মান পাস হতে হবে। এসএসসি ও এইচএসসি উভয় পরীক্ষায় ন্যূনতম জিপিএ-৪ এবং স্নাতক বা সম্মান পরীক্ষায় জিপিএ-২.৫ বা দ্বিতীয় শ্রেণি পেয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে। ইঞ্জিনিয়ারিং ও ইলেকট্রিক্যাল শাখার প্রার্থীদের সরকার কর্তৃক স্বীকৃত স্বনামধন্য/ পাবলিক প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়
থেকে নেভাল আর্কিটেকচার/ মেকানিক্যাল/ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে স্নাতক হতে হবে। এসএসসি ও এইচএসসি উভয় পরীক্ষায় ন্যূনতম জিপিএ-৪ এবং স্নাতক বা সম্মান পরীক্ষায় সিজিপিএ-২.৫ বা দ্বিতীয় শ্রেণি থাকতে হবে। শিক্ষা শাখার সাধারণ প্রার্থীদের যেকোনো বিষয়ে সম্মান বা সম্মানসহ মাস্টার্স পাস হতে হবে। এসএসসি ও এইচএসসি উভয় পরীক্ষায় ন্যূনতম জিপিএ-৪ এবং সম্মান বা মাস্টার্স পরীক্ষায় ন্যূনতম সিজিপিএ-২.৫ বা দ্বিতীয় শ্রেণি পেয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে। আর শিক্ষা শাখার (বিবিএ/এমবিএ) প্রার্থীদের সরকার কর্তৃক স্বীকৃত যেকোনো বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফিন্যান্স/ অ্যাকাউন্টিং/ ম্যানেজমেন্ট/ মার্কেটিং বিষয়ে বিবিএ/ এমবিএ ডিগ্রিধারীরা আবেদন করতে পারবেন। এসএসসি ও এইচএসসি উভয় পরীক্ষায় ন্যূনতম জিপিএ-৪ এবং বিবিএ/ এমবিএতে সিজিপিএ-২.৫ বা দ্বিতীয় শ্রেণি থাকতে হবে। অন্যদিকে শিক্ষা শাখায় (মেডিকেল) প্রার্থীদের সরকার কর্তৃক স্বীকৃত যেকোনো মেডিকেল কলেজ থেকে চিকিৎসাবিজ্ঞানে স্নাতক পাস হতে হবে। এসএসসি ও এইচএসসি উভয় পরীক্ষায় ন্যূনতম জিপিএ-৪ বা প্রথম শ্রেণি এবং ইন্টার্নশিপসহ এমবিবিএস উত্তীর্ণ হতে হবে। এক্সিকিউটিভ এবং ইঞ্জিনিয়ারিং ও ইলেকট্রিক্যাল শাখার প্রার্থীদের বয়স আগামী ১ জুলাই সর্বোচ্চ ৩০ বছর হতে হবে। শিক্ষা শাখা (সাধারণ) ও (বিবিএ/এমবিএ) প্রার্থীদের একই তারিখে সর্বোচ্চ ৩৫ বছর থাকতে হবে। শুধু শিক্ষা শাখা (মেডিকেল) প্রার্থীদের ক্ষেত্রে একই তারিখে ২৮ বছর হতে হবে।

প্রতিটি শাখার পুরুষ প্রার্থীদের উচ্চতা ৫ ফুট ৪ ইঞ্চি ও নারীদের জন্য ৫ ফুট ১ ইঞ্চি হতে হবে। ওজন পুরুষদের জন্য ৫০ কেজি ও নারীদের জন্য ৪৬ কেজি। বুকের মাপ পুরুষদের জন্য স্বাভাবিক অবস্থায় ৩০ ইঞ্চি, প্রসারিত অবস্থায় ৩২ ইঞ্চি। নারীদের ক্ষেত্রে স্বাভাবিক অবস্থায় ২৮ ইঞ্চি, প্রসারিত অবস্থায় ৩০ ইঞ্চি থাকতে হবে।

.আবেদন প্রক্রিয়া
বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী এই পদের জন্য অনলাইন ও সরাসরি দুই পদ্ধতিতেই আবেদন করা যাবে। অনলাইনে আবেদনকারী ট্রাস্ট ব্যাংক মোবাইল মানির গ্রাহক হলে প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে ১৬২০১ নম্বরে একটি এসএমএস করতে হবে। এ ক্ষেত্রে টিবিএমএম অ্যাকাউন্টে ন্যূনতম ৭০০ টাকা থাকতে হবে। এসএমএস করার পর প্রার্থী একটি ট্রানজেকশন আইডি পাবেন। এরপর বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ওয়েবসাইট www.bangladeshnavy.org থেকে Join Navy লিংকে ক্লিক করে অথবা www.joinnavy.mil.bd ওয়েবসাইট থেকে অনলাইনে ফরম পূরণ করে জমা দেওয়া যাবে। প্রার্থীদের অনলাইনে কলআপ লেটার প্রেরণ করা হবে। এ ছাড়া সরাসরি আবেদনের ক্ষেত্রে যেসব প্রার্থী টিবিএমএমের গ্রাহক নন, তাঁদের ট্রাস্ট ব্যাংকের মনোনীত পে-পয়েন্ট বা ট্রাস্ট ব্যাংকের যেকোনো শাখায় গিয়ে ‘বিএন রিক্রুটমেন্ট ফান্ড’-এর অনুকূলে ৭০৬ টাকার (অফেরতযোগ্য) ফি জমা দিতে হবে। এরপর প্রার্থী একটি Notification SMS ও মানি রিসিপ্ট পাবেন, যাতে একটি ট্রানজেকশন আইডি থাকবে। এ আইডি নম্বর অনলাইনে ফরম পূরণের ক্ষেত্রে পেমেন্ট পেজের যথাস্থানে লিখতে হবে। ফরম পূরণ করার পর আবেদনপত্রের সঙ্গে ছবি ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সংযুক্ত করে প্রাথমিক সাক্ষাৎকারের সময় জমা দিতে হবে।
নির্বাচন প্রক্রিয়া
আবেদনপত্র যাচাই-বাছাইয়ের পর ২৮ থেকে ৩১ মার্চ বিএন কলেজ ঢাকায় প্রার্থীদের প্রাথমিক স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও প্রাথমিক সাক্ষাৎকার অনুষ্ঠিত হবে। এসব পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের আগামী ১ এপ্রিল ওপরে উল্লিখিত কেন্দ্রে লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। লিখিত পরীক্ষা হবে তিনটি বিষয়ে। বুদ্ধিমত্তা, ইংরেজি ও সাধারণ জ্ঞান বিষয়ে। লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের আবার আইএসএসবি পরীক্ষা ও সাক্ষাৎকারে অংশগ্রহণ করতে হবে। আইএসএসবি কর্তৃক নির্বাচিত প্রার্থীদের ঢাকা সেনানিবাসের বিএনএস হাজী মহসীনে আবারও চূড়ান্ত স্বাস্থ্য পরীক্ষা দিতে হবে। এরপর তাঁদের নৌবাহিনী সদর দপ্তরে অনুষ্ঠিতব্য সাক্ষাৎকারের মাধ্যমে চূড়ান্তভাবে নির্বাচন করা হবে।

বেতন ও সুযোগ-সুবিধা
চূড়ান্তভাবে নিয়োগপ্রাপ্ত প্রার্থীরা সরকার কর্তৃক নির্ধারিত সশস্ত্র বাহিনীর বেতনক্রম অনুযায়ী বেতন পাবেন। তাঁরা দেশে-বিদেশে উচ্চতর প্রশিক্ষণ, বাসস্থান, সন্তানদের লেখাপড়ার সুবিধা, ডিওএইচএসে প্লট প্রাপ্তির সুবিধা, উন্নত চিকিৎসাসহ নানা ধরনের সুযোগ-সুবিধা পাবেন। এ ছাড়া জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী বাহিনীতে যোগদান করে বিদেশ ভ্রমণ ও আর্থিক সচ্ছলতা অর্জনের সুযোগ পাওয়া যাবে।

বিস্তারিত যোগাযোগ
পরিচালক, পার্সোনেল সার্ভিসেস পরিদপ্তর, নৌবাহিনী সদর দপ্তর, বনানী, ঢাকা-১২১৩।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জেডএম

উপরে