আপডেট : ৬ জুলাই, ২০১৯ ০৯:২১

মদের গুদামে ভয়াবহ আগুন, পুড়ে ছাই ৪৫০০০ ব্যারেল হুইস্কি!

আন্তর্জাতিক
মদের গুদামে ভয়াবহ আগুন, পুড়ে ছাই ৪৫০০০ ব্যারেল হুইস্কি!

বিধ্বংসী আগুনে ভষ্মীভুত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কেন্টাকির এক হুইস্কির গুদাম। দাউ দাউ করে জ্বলে ওঠে প্রায় ৪৫,০০০ দামি ‘জিন বিম’ হুইস্কির ব্যারেল। আগুন নেভাতে রীতিমতো হিমশিম খান দমকলকর্মীরা। আগুন নেভাতে ছেটানো পানি মদে মিশে তা গড়াতে থাকে গুদামের পাশের নদীতে।

এমনিতেই অ্যালকোহল ভীষণ দাহ্য পদার্থ। তাই এদিন মদের গুদামে আগুন নিয়ন্ত্রণে সমস্যায় পড়তে হয় দমকলকর্মীদের।

তবে, দমকলকর্মীদের বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগ এনেছে জিন বিম কর্তৃপক্ষ। তাদের মতে, বারবার বারণ করা সত্ত্বেও দমকলকর্মীরা পানি ছেটানো বন্ধ করেনি। আগুন লাগার পরে মদের ব্যারেলগুলি ভেঙে পড়ে। পানি ছেটানোর ফলে সেই মদ ধুয়ে গড়াতে থাকে গুদামের পাশের নদীতে। প্রচুর পরিমাণে মদ মিশে দূষিত হয় নদীর পানি।

দমকলকর্মীদের মতে, হুইস্কির মধ্যে অ্যালকোহলের পরিমাণ অনেকটাই বেশি। তাই আগুন লাগার পর দাউ দাউ করে জ্বলে ওঠে ব্যারেলগুলি। আগুন লেগে জ্বলতে থাকে মদ। এসব ক্ষেত্রে পানি ছেটানো হলেও অ্যালকোহল পুড়ে শেষ না হওয়া পর্যন্ত আগুন নেভে না। এদিনও সেই পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়েছেন তারা।

এই বিপুল পরিমাণ মদ নদীতে মেশাকে ভাল চোখে দেখছেন না স্থানীয় সরকারি কর্মকর্তারা। তাঁদের মতে, এই হুইস্কি, ব্যারেলের অবশিষ্ট ও জল মিশে দূষিত হয়েছে নদী। নদীতে এই অ্যালকোহলের ফলে ব্যাকটেরিয়ার পরিমাণ বৃদ্ধি পাবে। নদীতে অক্সিজনের মাত্রা কমতে পারে। ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হবে নদীর প্রাণীকূল।

সাধারণত, একটি ব্যারেলে প্রায় ৫৩ গ্যালন বার্বন থাকে। বার্বন যত পুরানো হয়, তার দামও বাড়তে থাকে। জিন বিম তাদের এই গুদামে বার্বন হুইস্কি সংরক্ষণ করত। নির্দিষ্ট এজিং হলে তবেই তা বিক্রির জন্য পাঠানো হত। এ রকম প্রায় ১২৬ টি গুদাম আছে সংস্থার। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বেশ জনপ্রিয় জিন বিম-এর হুইস্কি।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

উপরে