আপডেট : ৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৮:১৬

‘মাকে মেরে ফেলেছে বাবা’

অনলাইন ডেস্ক
‘মাকে মেরে ফেলেছে বাবা’

বিশ্বব্যাপী নারী নির্যাতনের অন্যতম একটি কারণ যৌতুক। যৌতুকের জন্য নির্যাতিত হয়ে প্রাণও দিতে হয় অনেক নারীকে। কলকাতার সমাজে এই ব্যাধি যেন রয়ে গেছে আগের মতোই। কলকাতায় বর্তমানে অলিগতিতে এমনসব শিশুদের দেখা মিলে যাদের মা নেই। এদের মধ্যে অনেকে দুধের শিশু, কিশোর বা তরুণ। এসব শিশুদের বেঁচে থাকতে হচ্ছে অন্যের অনুগ্রহে।

এমনই এক শিশু স্থানীয় দেগঙ্গার দুই বছরের আশিক বিল্লা। তার মা বেঁচে নেই। থাকেন নানির সঙ্গে। আশিক বিল্লার মা কীভাবে মারা গিয়েছে জানতে চাইলে সে বলে, 'মাকে মেরে ফেলেছে বাবা!' আর কিছুই বলতে পারেনি সে।

চার বছর বয়সের আরেক শিশু ইমরান। সে এখনো হঠাৎ করে 'আগুন, কত্ত আগুন! সব ‍পুড়ে গেল...' এভাবে চিৎকার করে ওঠে। ইমরানের মা তার সামনেই অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা যায়। তার দাদিই তার মায়ের শরীরে আগুন দিয়েছিল বলে অভিযোগ করা হয়।

মা মারা যাওয়ার পর ইমরান মামার বাড়িতে থাকেন। মামা নুরউজ্জামানের অভিযোগ, পণের দাবিতে অত্যাচার করতেন শাশুড়ি। তিনিই রাহেনাকে পুড়িয়ে মারেন। ইমরানের স্ত্রী বলেন, ‘কী যেন একটা ভয়ে ছেলেটা সব সময় কুঁকড়ে থাকে। চিৎকার করে, কাঁদে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/রাসেল

উপরে