আপডেট : ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১৪:৫৮

১৩ বছরেই অন্তঃসত্ত্বা, অতঃপর বিয়ে

অনলাইন ডেস্ক
১৩ বছরেই অন্তঃসত্ত্বা, অতঃপর বিয়ে

মাত্র ১৩ বছর বয়সেই অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে এক বালিকা। ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা এই বালিকাকে পারিবারিকভাবে বিয়ে দেয়া হয়েছে তার প্রেমিকের সঙ্গে। তারও বয়স ১৩ বছর। সম্প্রতি চীনের এমন একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে ইন্টারনেটে।

তাতে দেখা যাচ্ছে ওই বালক ও বালিকার বিয়ের আয়োজন। চীনের প্রচলিত রীতি অনুযায়ী তারা একে অন্যের সামনে মাথা নত করে। উপস্থিত অভিভাবকরা তাদেরকে উৎসাহিত করেন। এ বিয়ের পাত্র ও পাত্রীর নাম প্রকাশ করা হয় নি।

কিন্তু ভিডিওটি নিয়ে ব্যাপক বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে। অনেকেই বিস্ময় প্রকাশ করেছেন এত কম বয়সে বাচ্চাদের বিয়ে দেয়া নিয়ে। এমন কি পাত্রী অন্তঃসত্ত্বা হওয়া নিয়ে দেখা দিয়েছে আরো উদ্বেগ।

এ নিয়ে সচিত্র রিপোর্ট প্রকাশ করেছে লন্ডনের অনলাইন ডেইলি মেইল। এতে বলা হয়, চীনের হাইনান প্রদেশের ডিংয়ান কাউন্টি এলাকায় বসবাস করে ওই বালক ও বালিকা।

বেইজিং নিউজকে স্থানীয় এক কর্মকর্তা বলেছেন, গত মাসে ওই বিয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে। তবে সরকারিভাবে এ বিয়ে রেজিস্ট্রি করা হয় নি। কারণ, পাত্র-পাত্রী এখনও সরকার নির্ধারিত বিয়ের বয়সের অনেক নিচে। তাই তাদের বিয়ে আয়োজন করা হয় পারিবারিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে। এর মাধ্যমে রেজিস্ট্রি ছাড়াই তাদেরকে বিয়ে দেয়া হয়েছে।

এ ভিডিওটি দেখে চেরি হ্যানবাও নামে একজন ওয়েইবো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মন্তব্য করেছেন, ওরা তো এখনও শিশু। ভবিষ্যতে কিভাবে তারা একে অন্যের দায়িত্ব বহন করবে?

জিঙ্গবাও বেবি নামের আরেকজন লিখেছেন, এই দম্পতি যখন ভাল করে বোঝা শিখবে তখন তারা ভীষণ অনুশোচনা করবে। তবে চীনের গ্রাম এলাকায় এখনও সেই পুরনো দিনের রীতি রয়েছে গেছে। সেখানে অভিভাবকরা তাদের সন্তানদের শিক্ষা দেয়ার চেয়ে বিয়ে দেয়াকে সবচেয়ে বেশি অগ্রাধিকার দেন। এই ধারণাটি প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে বয়ে আসছে।

উল্লেখ্য, চীনে বিয়ের জন্য সরকার নির্ধারিত বিয়ের বয়স নারীদের জন্য ২০ বছর। ছেলেদের ক্ষেত্রে ২২ বছর। তা সত্ত্বেও সেখানকার গ্রামীণ জীবনে বাল্যবিয়ে একটি সাধারণ চর্চায় পরিণত হয়েছে।

উপরে