আপডেট : ২৭ মার্চ, ২০১৬ ১৩:০০

আসামের চা বিক্রি করতেন মোদি!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আসামের চা বিক্রি করতেন মোদি!

ছেলেবেলায় রেলস্টেশনের প্লাটফর্মে চা বিক্রির কথা প্রায়ই বিভিন্ন জনসভায় বলে থাকেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এবার দাবি করলেন চা-বিক্রেতা হিসেবে ভারতের আসাম রাজ্যে উৎপন্ন চা বিক্রি করে রাজ্যটির সঙ্গে এক গভীর বন্ধনে জড়িয়েছেন তিনি।

শনিবার (২৬মার্চ) ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যটির তিনসুকিয়াতে এক নির্বাচনী জনসভার বক্তৃতায় মোদি এসব কথা বলেন, খবর এনডিটিভির।

তিনসুকিয়ার জনসভা দিয়ে আসামের আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে ভারতীয় জনতা দলের (বিজেপি) নির্বাচনী প্রচারণায় রাজ্যটিতে দুইদিনের এক সফর শুরু করেছেন মোদি। সফরের প্রথম ভাষণে তিনি বলেন, লোকজনের কাছে আমি যে চা বিক্রি করেছি তা আপনাদেরই চা, এই চা বিক্রি করেই আমি আমার ছেলেবেলা পার করেছি। এর মাধ্যমে শিশুকাল থেকেই আসামের সঙ্গে এক অচ্ছেদ্য সম্পর্কে জড়িয়ে আছেন বলে জানান তিনি।

আসামের কংগ্রেস দলীয় মুখমন্ত্রী তরুণ গগৈ গত ১৫ বছর ধরে রাজ্যটির সরকার পরিচালনা করছেন। এবার গগৈকে হারিয়ে রাজ্য সরকার গঠন করার স্বপ্ন দেখছে বিজেপি। সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করার প্রচারণায় মোদি এক নতুন শ্লোগান তুলেন, তিনি বলেন, আমি গগৈ না, লড়াই করছি গরিবির সঙ্গে।

ভারতের বিজেপি সরকারের কেন্দ্রীয় ক্রীড়া ও যুব মন্ত্রী সর্বানান্দ সনৌয়াল (৫৩) তিনসুকিয়া আসন থেকে লোকসভার সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। জনসভায় সনৌয়ালকে আসামের ভবিষ্যৎ মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে তুলে ধরেন মোদি।

তিনি বলেন, এই নির্বাচন দিল্লির জন্য একটি লোকসান বয়ে আনবে। আমি নিজেও ক্ষতিগ্রস্ত হতে যাচ্ছি। সর্বানান্দ আমার সরকারের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রী। আমার তাকে আসামে পাঠাতে হবে, জনগণের সেবা করার জন্য।

এবার ক্ষমতায় আসার স্বপ্ন দেখলেও বিজেপি আগে কখনোই রাজ্যটির ক্ষমতায় ছিল না। আসামের ৭৯ বছর বয়সী মুখ্যমন্ত্রী গগৈর বয়স নিয়ে রসিকতা করে মোদি বলেন, আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই আসামের নেতার বয়স ৯০ বছর হবে।

মোদি বলেন, ভারতের পাঁচটি সবচেয়ে গরিব রাজ্যের মধ্যে আসাম একটি। অথচ এক সময় আসামকে ধনী রাজ্যগুলোর মধ্যে গণ্য করা হতো। কে এই রাজ্যকে গরিব বানালো আমি আর কিছুই চাই না, সর্বানান্দকে শুধু পাঁচ বছর সময় দিন। এই নির্বাচন আসামকে একজন তরুণ মুখমন্ত্রী দিবে। সেই দিন বেশি দূরে নয় যখন শিশুরা স্কুলে গিয়ে ‘এ ফর আসাম’ শিখবে।

আসামের উন্নয়নই বিজেপির একমাত্র এজেন্ডা হবে বলে জানান মোদি। তরুণদের বেকারত্বই আসামের সবচেয়ে বড় সমস্যা। বেকারত্বের ভারে জর্জরিত ভারতীয় পাঁচটি রাজ্যের মধ্যে আসাম অন্যতম।

আসামে নির্বাচনী সফরে দুই দিনে সাতটি জনসভায় ভাষণ দেওয়ার কথা রয়েছে মোদির। রাজ্যটির বিধানসভার ১২৬টি আসানের মধ্যে ৯১টিতে প্রার্থী দিয়েছে বিজেপি। গত লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যটির ১৪টি আসনের মধ্যে সাতটিতে জয় পায় বিজেপির প্রার্থীরা।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

উপরে