আপডেট : ২১ মার্চ, ২০১৬ ১৩:৪৬

জিহাদী থেকে মডেল

বিডিটাইমস ডেস্ক
জিহাদী থেকে মডেল

একজন প্রাক্তন সিরিয়ান জিহাদী দুবাইয়ের একটি শীর্ষ মডেলিং সংস্থার সাথে চুক্তি সাক্ষরের মাধ্যমে সম্পূর্ণ বদলে ফেললেন তার জীবন। পেছনে ছেড়ে আসলেন তার জিহাদী মনোভাব আর সামনে রাখলেন একটি উজ্জ্বল, শান্ত, কোমল, বনস্পতি জীবন।

আহমেদ রাহমান ইয়াসিন, ২৩ বছরের এই সিরিয়ান যুবক যিনি এখন সত্যিকার অর্থেই সিন্ডেরেলার গল্পের মত জীবন যাপন করছেন। অথচ কিছুদিন আগেই যার চোখ নিমজ্জিত ছিল রক্ত পিপাসায়।

দুবাইয়ের একটি পত্রিকায় তিনি বলেন, ‘আমি এক মিনিটের জন্যে হলেও বিশ্বাস করতাম নাহ যে, আল্লাহ তায়ালার বন্দনা এইরকম সুস্থ মস্তিস্কে করা যায়।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমি ভাবতাম জিহাদ মানে হল আল্লাহ তায়ালার শত্রুদের হত্যাই করা কেবল, এখন আমি জানি আল্লাহকে বন্দনা করবার আরো অনেক উপায় রয়েছে। আমি এখনও বিশ্বাস করি যে, আমি আল্লাহর দেখানো পথেই আছি, কিন্তু এখন সেটা আরো আধ্যাতিক এবং সৃজনশীল।’

তিনি আরো যোগ করেন, ‘আমার পরিবারের অধিকাংশ সদস্যই জিহাদী এবং সিরিয়ান মিলিটারিদের মধ্যকার যুদ্ধে মৃত্যুবরণ করেন। আমি খুব অল্পের জন্যে সেদিন বেঁচে যাই। আমার পাশে দাঁড়াবার জন্য আর কেউ বাকী ছিল নাহ তাই বাধ্য হয়ে আমি যোগ দেই জিহাদী সংঘঠন আইসিস এ। যেটা পরবর্তীতে হয়ে ওঠে আমার দ্বিতীয় পরিবার।’  

এই যুবকের একটি ছবি আরব মিডিয়াতে প্রকাশ হয়ে গেলে, সামাজিক যোগাযোগ মাধম্যগুলোতে তার ঐ ছবি অসংখ্যবার শেয়ার হতে থাকে। এবং মহিলারা এই ছবিতে কমেন্ট ছুঁড়তে থাকেন ‘সেক্সি জিহাদী’ এবং এই নামটা অল্প কিছুদিনের মধ্যেই বেশ জনপ্রিয়তা পায়। এরপরই দুবাইয়ের একটি শীর্ষ মডেলিং সংস্থা তাকে খুঁজে বের করে একটি মিটিং এর ব্যবস্থা করেন। আর এভাবেই বদলে যায় একজন জিহাদী যুবকের জীবন।

খুব শীঘ্রই তিনি দুবাইয়ের একটি শীর্ষ ফ্যাশন ম্যাগাজিনের জন্যে তার প্রথম ফোটোশুটটি করবেন।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জামি

উপরে