আপডেট : ১৫ মার্চ, ২০১৬ ১১:০৭

সিরিয়ায় আইএস নিধনে ফেলা হচ্ছে বোমা, কিন্তু প্রাণ হারাচ্ছে নিস্পাপ শিশুগুলো

অনলাইন ডেস্ক
সিরিয়ায় আইএস নিধনে ফেলা হচ্ছে বোমা, কিন্তু প্রাণ হারাচ্ছে নিস্পাপ শিশুগুলো

সিরিয়ায় আইএস নিধনে মেতেছে বিশ্বের একটা বড় অংশ। যখন তখন পড়ছে বোমা। দিনরাত আকাশে উড়ছে বোমারু ড্রোন। বছরের পর বছর ধরে চলছে যুদ্ধ। আর ৫ বছরের ক্ষমতার এই লড়াইয়ে সবচেয়ে বড় খেসারতটা দিচ্ছে শিশুরা। সিরিয়ার যুদ্ধে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ৮০ শতাংশ শিশু। বিভিন্ন সমীক্ষা বলছে, যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়ায় শিশুদের জোর করে রোজগারে নামিয়ে দেওয়ার ঘটনাও লাফিয়ে বাড়ছে।
UNICEF-এর রিপোর্টে সিরিয়ার শিশুদের অবস্থা নিয়ে বেশ উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে। UNICEF-এর আঞ্চলিক প্রধান পিটার সালামা জানিয়েছেন, দিনের পর দিন চলা যুদ্ধে সাধারণ মানুষের দারিদ্র এতটাই বেড়ে গিয়েছে যে, পেটের দায়ে মা-বাবারা শিশুদের কাজে নামিয়ে দিচ্ছেন। কিংবা তাদের হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছে অস্ত্র। টাকার বিনিময়ে বহু নাবালিকাকে জোর করে বিয়েও দিয়ে দেওয়া হচ্ছে।
সিরিয়ার শিশুদের সাহায্য করার জন্য বিশ্বের কাছে ১১৬ কোটি মার্কিন ডলার আর্থিক অনুদান চেয়েছে UNICEF। লজ্জার বিষয়, এখনও পর্যন্ত মাত্র ৬ শতাংশ টাকা জমা পড়েছে। সালামার কথায়, 'এই মর্মান্তিক পরিস্থিতি এখনই ঠেকানো উচিত। আসুন সবাই মিলে সিরিয়ার ভবিষ্যত্‍‌ প্রজন্মকে রক্ষা করি। ওই শিশুদের একটা ভবিষ্যত্‍‌ রয়েছে।'

সিরিয়ার যুদ্ধ শুরু হয়েছিল ২০১১ সালে। বাসার আল আসাদের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ পরিণত হয়ে যায় জনযুদ্ধে। সেই থেকে এখনও পর্যন্ত শিশু-নারী নির্বিশেষে আড়াই লক্ষ মানুষের মৃত্যু হয়েছে সিরিয়ায়।

উপরে