আপডেট : ৮ মার্চ, ২০১৬ ১৫:০১

শরণার্থী সংকট: এখনও সমাধানে আসতে পারেনি ইইউ-তুরস্ক

বিডিটাইমস ডেস্ক
শরণার্থী সংকট: এখনও সমাধানে আসতে পারেনি ইইউ-তুরস্ক

ব্রাসেলসে ইউরোপের শরণার্থী সংকট সমাধানে বসা বৈঠক থেকে কোনও সমাধানে আসেনি ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও তুরস্ক।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট বলেছেন, তুরস্ক থেকে সাগর পাড়ি দিয়ে গ্রীসে যেতে গিয়ে যত মানুষ নৌকাডুবিতে মারা যাচ্ছে তার সংখ্যা তারা কমিয়ে আনতে চান।

কিন্ত বিনিময়ে তিনি চান তুরস্কের আশ্রয় শিবিরগুলোতে থাকা সিরিয় শরণার্থীদের একটি অংশকে যেন ইউরোপে সরাসরি আশ্রয় দেয়া হয়।

ইইউ বলছে, এই নিয়ে আরো আলোচনা প্রয়োজন।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ইউরোপের বড় শরণার্থী সংকট সামলাতে ব্রাসেলসে তুরস্কের সঙ্গে বৈঠকে বসে ইইউ।

৩৩০ কোটি মার্কিন ডলারের ত্রাণ সহায়তার বিনিময়ে কিছু শরণার্থীকে ইউরোপ থেকে ফিরিয়ে নিতে তুরস্ককে চাপ দিচ্ছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন।

আর এই অর্থ সাহায্য দ্বিগুণ করার জন্য ইউরোপকে চাপ দিচ্ছে তুরস্ক। ইউরোপের বড় শরণার্থী সংকট সামলাতে ব্রাসেলসে বৈঠকে বসে ইইউ ও তুরস্ক।

আগেও সহায়তা দেওয়ার প্রতিজ্ঞা করে ইইউ তা পূরণ করেনি বলে ইউরোপীয় ইউনিয়নকে অভিযুক্ত করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রেচেপ তায়েপ এরদোয়ান।

আর নেটো সেক্রেটারি জেনারেলের সাথে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে কথা বলতে গিয়ে তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী আহমেত দোভুতোলু শরণার্থী সংকট সমাধানে নতুন একটি প্রস্তাব ব্যখ্যা করেন।

তুর্কী প্রধানমন্ত্রী আহমেত দোভুতোলু বলেছেন, "এই নতুন প্রস্তাবে আমাদের লক্ষ্য হলো শরণার্থীদের জীবন রক্ষা করা। শরণার্থীদের মরিয়া দশার সুযোগ নিয়ে যারা তাদের পাচার করছেন তাদেরকে নিরুৎসাহিত করা। মানব পাচারকারীদের বিরুদ্ধে লড়াই করা এবং তুরস্ক ও ইইউ সম্পর্কের এক নতুন সময়ের উন্মোচন করা"।

কিন্তু ইউরোপীয় পার্লামান্টের প্রেসিডেন্ট মার্টিন শালজ বলেছেন, এই বিষয়ে কোনো প্রকার পূর্বশর্ত দেয়া চলবে না।

সিরিয়া থেকে আসা ২৭ লাখের বেশি শরণার্থী বর্তমানে তুরস্কে রয়েছে।

শরণার্থী সংকট মোকাবেলায় অর্থ সাহায্য বাড়ানোর পাশাপাশি তুরস্ক তাদেরকে দ্রুত ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্যপদ প্রদান এবং তুর্কিদের ইউরোপে ভিসাবিহীন ভ্রমণের সুযোগ দেবার প্রস্তাব দিচ্ছে।

উপরে