আপডেট : ৭ মার্চ, ২০১৬ ১৫:৫৬

চার শিশুর বিয়ে এক জনের বয়স মাত্র ২!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
চার শিশুর বিয়ে এক জনের বয়স মাত্র ২!

গোপন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মাত্র দুই বছর বয়সী একটি মেয়েসহ চার শিশুকন্যার বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে। ভারতের রাজস্থানে গত ফেব্রুয়ারি মাসে অভিভাবকদের উপস্থিতিতেই বাল্যবিবাহের ঘটনাটি ঘটে। ছদ্মবেশী এক সাংবাদিক বিয়ের অনুষ্ঠানটি তার মোবাইল ফোনে ধারণ করে। পরে তিনি ঘটনাটি পুলিশকে জানান।

গত ২৩ ফেব্রুয়ারি ভারতের রাজস্থান প্রদেশের ভিলওয়ারা জেলার গজুনা গ্রামে এ বাল্যবিবাহের ঘটনা ঘটে। মেয়েদের সবার বয়স দুই থেকে ১২ বছরের মধ্যে। বর ছেলেরাও সবাই অপ্রাপ্ত বয়স্ক। বিয়ের অনুষ্ঠান হওয়ার কথা ছিল ২৫ ফেব্রুয়ারি। কিন্ত অবিভাবকদের মধ্যে একজন বিবাহের দিন দুই দিন এগিয়ে আনেন। তিনি পুলিশসহ বিভিন্ন ভয়ের আশঙ্কা করছিলেন।

একজন সাংবাদিক এই ঘটনা জানতে পারেন। তিনি একজন গ্রামবাসী হিসেবে ছদ্মবেশ নিয়ে তার মোবাইল ফোনে গোপনে অনুষ্ঠানটি রেকর্ড করে নেন। পরে তিনি পুলিশকে এ সম্পর্কে জানান এবং পুলিশ ৩৭ ও ৪০ বছর বয়সী দুই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে। এ শিশুকন্যাদের একজনের বাবা এক বছর আগে মারা গেছেন। সেজন্য তার পরিবারের লোকজনের কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি।

শিশু কনেরা ঐতিহ্যগতভাবে বয়ঃসন্ধির পর পর্যন্ত তাদের স্বামীদের সাথে বসবাস করবে না। ওই চার কনে এখন তাদের মায়েদের সঙ্গে থাকবে। পুলিশ তাদের ওপর নজর রাখবেন।

ভিলওয়ারা স্টেশন ইনচার্জ সুরেন্দ্র কুমার মিশ্র বলেন, ‘ঘটনা জানতে পেরে আমরা তাৎক্ষণিকভাবে বিয়ে বন্ধের উদ্যোগ নেন। কিন্তু জড়িত ব্যক্তিরা পালিয়ে গিয়েছিলো। চারদিন পর তাদের খুঁজে পাওয়া গেছে। পুলিশ তিন জনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ উত্থাপন করেছে। ভারতীয় আইন অনুযায়ী তদন্তের আগেই প্রয়োজনীয় কাজটি শুরু করা হয়েছে। বাল্যবিবাহ আইন ভঙ্গের অভিযোগে তাদের গ্রেফতার করেছে।’

সুরেন্দ্র কুমার মিশ্র আরো বলেন, ‘তাদের সর্বোচ্চ শাস্তি হতে পারে এক লাখ ভারতীয় রুপি জরিমানা ও তিন থেকে চার বছর কারাদণ্ড।’

শিশু অধিকার কর্মী কৃতি ভারতী বাল্যবিবাহ বাতিলের মামলা করতে চাইছেন। তিনি ওই চার কন্যার বিয়ে নাকচ করতে চাইছেন।

তিনি বলেন, ‘আমরা এখন নিরাময়কারী পদ্ধতি খুঁজছি। যদিও এটি পুলিশ কেস, পরিবারের বিরুদ্ধে নিবন্ধিত হয়েছে। আমরা স্পষ্টভাবে সংঘটিত এই চারটি বিয়ে বাতিল করার জন্য কাজ করবো।’

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/এসএম

উপরে