আপডেট : ৩ মার্চ, ২০১৬ ২০:২১

‘আল্লাহ আমাকে শিশুটির মাথাকাটার আদেশ দিয়েছেন’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
‘আল্লাহ আমাকে শিশুটির মাথাকাটার আদেশ দিয়েছেন’

নিজের তত্ত্বাবধানে থাকা এক শিশুকে খুনের অভিযোগে গ্রেপ্তার এক উজবেক নারী ‘আল্লাহ তাকে শিশুটির মাথা কাটার আদেশ দিয়েছেন’ বলে দাবি করেছেন।

বুধবার মস্কোর একটি আদালত প্রাঙ্গণে তিনি বলেন, আল্লার আদেশেই তিনি এই কাজ করেছেন।খবর রয়টার্সের।

তিন সন্তানের জননী ৩৮ বছর বয়সী গুলচেখরা বোবোকুলোভা কোর্টরুমে প্রবেশের সময় সাংবাদিকদের কাছে ওই মন্তব্যটি করেন।

নিজের অপরাধ স্বীকার করেন কিনা, এমন প্রশ্নে ‘হ্যাঁ’ সূচক জবাব দিয়েছেন বোবোকুলোভা। 

এর আগে সোমবার আয়ার কাজ করা ওই নারীকে একটি শিশুর খণ্ডিত মস্তকসহ মস্কোর একটি মেট্রো রেল স্টেশনের সামনে থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ওই সময় শিশুর খণ্ডিত মাথাটি সবাইকে দেখাচ্ছিল সে, তার এই কাজে ঘটনাস্থলে ইসলামপন্থি সন্ত্রাসী হামলার আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। 

শিশু হত্যার সঙ্গে বোবোকুলোভা ছাড়া এখনও পর্যন্ত আর কারও জড়িত থাকার কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি বলে আদালতকে জানিয়েছেন এক তদন্তকারী।

বোবোকুলোভা মানসিক অসুস্থতায় ভুগছেন বলে জানিয়েছেন রুশ কর্মকর্তারা।

নিহত মেয়ে শিশুটির বয়স দুই বা তিন বছর বলে জানিয়েছে অনলাইন ভিত্তিক স্থানীয় ট্যাবলয়েড ‘লাইফ নিউজ’।

মস্কো ইনভেসটিগেটিভ কমিটির পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়,“মস্কোর উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের একটি আগুনে পুড়ে যাওয়া ফ্ল্যাট থেকে একটি শিশুর মস্তকবিহীন পোড়া দেহ উদ্ধারের পর তদন্ত শুরু হয়।”

প্রাথমিক তথ্য অনুযায়ী, শিশুটির আয়া মধ্য এশিয়ার কোনো দেশের নাগরিক।ওই দিন তিনি নিহত শিশুটির বাবা-মা ও তাদের বড় সন্তানের বাসা থেকে বের হওয়ার অপেক্ষায় ছিলেন।

তারা বের হয়ে গেলে ওই নারী শিশুটিকে হত্যা করে খণ্ডিত মাথাটি ব্যাগে ভরে ফ্ল্যাটে আগুন ধরিয়ে দিয়ে চলে যায়।

 

উপরে