আপডেট : ৩ মার্চ, ২০১৬ ১৬:৫২

নিষেধাজ্ঞা জারি করায় চটেছেন ‘কিম’, এক ঝাঁক ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ে প্রতিবাদ!

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক
নিষেধাজ্ঞা জারি করায় চটেছেন ‘কিম’, এক ঝাঁক ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ে প্রতিবাদ!

রাষ্ট্রপুঞ্জ নিষেধাজ্ঞা জারি করতেই এক ঝাঁক ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ল উত্তর কোরিয়া। বৃহস্পতিবার সকালে নিজেদের দেশের পূর্ব উপকূলে একের পর এক স্বল্প পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে উত্তর কোরিয়ার সেনাবাহিনী। হাইড্রোজেন বোমার পরীক্ষামূলক বিস্ফোরণ ঘটানো এবং বিতর্কিত রকেট উৎক্ষেপন কর্মসূচি বাতিল না করায় বুধবারই উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে একগুচ্ছ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে রাষ্ট্রপুঞ্জ। গত কয়েক দশকে এত কঠোর নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়েনি পিয়ংইয়ং। তার প্রতিবাদেই একের পর এক ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ে আস্ফালন করলেন কিম জং উন।

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রী বৃহস্পতিবার সকালে সবার আগে উত্তর কোরিয়ার এই ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের খবর প্রকাশ করে। উত্তর কোরিয়ার পূর্ব উপকূলের শহর ওনস্যান থেকে সমুদ্রের দিকে তাক করে ক্ষেপণাস্ত্রগুলি ছোড়া হয়েছে বলে দক্ষিণ কোরিয়া জানিয়েছে। উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্রগুলি  প্রায় ১৫০ কিলোমিটার পাড়ি দিয়ে দক্ষিণ কোরিয়ার জলসীমার খুব কাছে জাপান সাগরে আঘাত করেছে। অন্তত ৬টি ক্ষেপণাস্ত্র এ দিন সকালে ছোড়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। পিয়ংইয়ং-এর এই হুঙ্কার জাপান সাগর তথা এশিয়া-প্যাসিফিক এলাকার উত্তাপ এক ধাক্কায় অনেকটা বাড়িয়ে দিয়েছে। সমুদ্রে ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ার পর উত্তর কোরিয়ার সব গতিবিধির উপর সতর্ক নজর রাখা হচ্ছে বলে আমেরিকা জানিয়েছে।

বুধবারই উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে একগুচ্ছ নিষেধাজ্ঞা জারির সিদ্ধান্তে সিলমোহর দিয়েছে রাষ্ট্রপুঞ্জ নিরাপত্তা পরিষদ। পণ্যবাহী যে সব জাহাজ বা বিমান উত্তর কোরিয়ায় যাচ্ছে বা আসছে, যাওয়া এবং আসার পথে সেগুলির বাধ্যতামূলক তল্লাশির নির্দেশ জারি করেছে নিরাপত্তা পরিষদ। উত্তর কোরিয়াকে যে কোনও ধরনের অস্ত্র বিক্রি করা বা দেওয়ার উপরও নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে। উত্তর কোরিয়া কয়লা, লোহা এবং লৌহ আকরিক রফতানি করে যে উপার্জন করে, তা বন্ধ করতেও নিরপত্তা পরিষদ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। সবক’টি দেশকেই উত্তর কোরিয়ার কাছ থেকে, কয়লা, লোহা বা লৌহ আকরিক কিনতে নিষেধ করা হয়েছে। রফতানি থেকে পাওয়া অর্থ দিয়ে উত্তর কোরিয়া যাতে হাইড্রোজেন বোমা, ক্ষেপণাস্ত্র-সহ নানা গণবিধ্বংসী অস্ত্র আরও বিপুল সংখ্যায় তৈরি করতে না পারে, তার জন্যই এই নিষেধাজ্ঞা। জানিয়েছে নিরাপত্তা পরিষদ। কিম জং উনের দেশকে জ্বালানি তেল বিক্রি করতেও অন্য দেশগুলিকে বারণ করেছে নিরাপত্তা পরিষদ।

উপরে