আপডেট : ২ মার্চ, ২০১৬ ২২:২৪

কনকর্ডের পর এবার আসছে কোয়েস্ট

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
কনকর্ডের পর এবার আসছে কোয়েস্ট

বিমান ভ্রমণে একসময়ের বিস্ময়, শব্দের চেয়ে দ্রুতগতিসম্পন্ন কনকর্ডের অভাব পূরণ করতে উদ্যোগ নিয়েছে মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা। ফ্রান্স ও যুক্তরাজ্যের তৈরি কনকর্ডের প্রচণ্ড শব্দের তুলনায় অনেক কম শব্দ করবে এটি। বিমানটির প্রাথমিক নকশা প্রণয়নের ফরমায়েশ দিয়েছে নাসা।
নাসা জানায়, কোয়ায়েট সুপারসনিক টেকনোলজির (কোয়েস্ট) প্রাথমিক নকশা তৈরি করার জন্য লকহিড মার্টিন অ্যারোনটিকসের নেতৃত্বাধীন একটি গ্রুপকে তারা বাছাই করেছে। অর্থায়ন সাপেক্ষে ২০২০ সালের মধ্যেই ওই বিমানটির একটি সাদামাটা সংস্করণ পরীক্ষামূলক উড্ডয়ন করার কথা রয়েছে।
নাসা বলছে, বিমানবন্দর এলাকার কাছের মানুষের কাছে সুপারসনিক বিমানের প্রচণ্ড শব্দ কমিয়ে গ্রহণযোগ্য মাত্রায় আনা এ প্রকল্পের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। সংস্থাটির ২০১৭ অর্থবছরের বাজেটে পেশ করা নিউ এভিয়েশন হরাইজন উদ্যোগে ‘এক্স-প্লেন’ সিরিজের এটিই প্রথম বিমান।
প্রসঙ্গত, ১৯৭৬ থেকে পরবর্তী ২৭ বছর অর্থাৎ ২০০৩ সাল পর্যন্ত চলাচল করত সুপারসনিক যাত্রীবাহী জেট বিমান কনকর্ড।
নাসার প্রধান চার্লস বল্ডেন বলেন, ‘মার্কিন বিমানবাহিনীর সাবেক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল চাক ইয়াগারের প্রথম সুপারসনিক বিমান বেল এক্স-ওয়ান পরীক্ষার পর প্রায় ৭০ বছর কেটে গেছে। সেই গবেষণাকে অব্যাহত রাখতেই আমাদের এ প্রকল্প। শব্দের চেয়ে দ্রুতগতিতে যাত্রীবাহী ফ্লাইট পরিচালনাই এর লক্ষ্য।’

উপরে