আপডেট : ১ মার্চ, ২০১৬ ১৯:২৮

বাঁধ ধসে বাগদাদে কয়েক ঘন্টায় মারা যেতে পারে পাঁচ লাখ মানুষ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
বাঁধ ধসে বাগদাদে কয়েক ঘন্টায় মারা যেতে পারে পাঁচ লাখ মানুষ

ইরাকের ট্রাইগ্রিস নদীর তীরে মসুল বাঁধে ধস দেখা দিতে পারে। বাঁধটি ধসে গেলে মাত্র কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে তলিয়ে যাবে পুরো বাগদাদ নগরী। সেই সঙ্গে মারা যাবে বাগদাদের প্রায় পাঁচ লাখ মানুষ। সম্ভাব্য ধস নিয়ে ওই এলাকায় বসবাসরত নাগরিকদের হুঁশিয়ার করে দিয়েছে ইরাক সরকার এবং বাগদাদের মার্কিন দূতাবাস।

১৯৮৪ সালে প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট সাদ্দামের আমলে ৩ দশমিক ৪ কিলোমিটার দীর্ঘ এ বাঁধটি নির্মাণ করা হয়েছিল। এর মাধ্যমে টাইগ্রিস নদী দিয়ে মসুল ও বাগদাদে ১১০০ কোটি কিউবিক মিটার পানি প্রবাহিত হয়। ২০১৪ সালে ইসলামিক স্টেট (আইএস) মসুল দখল করে। ওই সময় আশঙ্কা করা হয়েছিল আইএস মসুল বাঁধ উড়িয়ে দিতে পারে। দুই সপ্তাহ পর ইরাকের সরকারি সেনা ও কুর্দি যোদ্ধাদের সম্মিলিত হামলার পর বাঁধ এলাকা ছেড়ে যেতে বাধ্য হয় আইএস। তবে ওই সময়ে সংঘর্ষ এবং নিয়মিত তদারকির অভাবে বাঁধে ফাটল দেখা দিয়েছে।

ইরাকের প্রধানমন্ত্রী হায়দার আল-এবাদি বিবৃতিতে বলেছেন, এ বিষয়ে আগাম সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। বাঁধ ধসের আশঙ্কা অনেকটা ক্ষীণ।

তবে মার্কিন দূতাবাস থেকে দেওয়া বিবৃতিতে, নিজেদের নাগরিকদের মুসল ও বাগদাদ থেকে সরে যেতে বলা হয়েছে। এতে বলা হয়, ‘বাঁধ কখন ধসে পড়বে, সে বিষয়ে আমাদের কাছে সুনির্দিষ্ট তথ্য নেই। তবে শিগগির বাঁধ এলাকা ছেড়ে চলে যাওয়াই হবে লাখ লাখ মানুষের জীবন বাঁচানোর সবচেয়ে কার্যকর উপায়।’

মার্কিন দূতাবাস থেকে দেওয়া বিবৃতিতে বলা হয়েছে, এ বাঁধ ধসে পড়লে মসুল এলাকা ৭০ ফুট পানির নিচে ডুবে যেতে পারে এবং কয়েক ঘণ্টার মধ্যে টাইগ্রিস নদীর পাড়ে বসবাসরত ১৫ লাখ মানুষ মারা যেতে পারে।

উপরে