আপডেট : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৫:৫৮

শিশুর প্রাকৃতিক সুরক্ষায় ‘দুধ মা’ আন্দোলন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
শিশুর প্রাকৃতিক সুরক্ষায় ‘দুধ মা’ আন্দোলন

অন্যের বাচ্চাকে বুকের দুধ পান করানোর আন্দোলন গড়ে তুলছেন যুক্তরাষ্ট্রের লাসেই ড্যানজারস্টোন। দুই সন্তানের মা লাসেই ১২ শিশুকে নিজের বুকের দুধ পান করিয়েছেন। অনলাইনে বাচ্চাকে দুধ পান করানোর ছবি পোস্ট করে বিশ্বব্যাপী ‘দুধ মা’ আন্দোলন গড়ে তুলার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি।

লাসেই-এর প্রথম সন্তান লুনা হওয়ার পর থেকে অন্যের বাচ্চাকে দুধ পান করানো শুরু করেন। তিনি প্রথম দুধ পান করান-তার বোনের বন্ধুর বাচ্চাকে।

তার বোনের বন্ধু ও স্বামী সপ্তাহের শেষ দিন বাইরে থাকেন। তিনি যখন তাদের বাচ্চাকে দুধ পান করানোর প্রস্তাব দেন তখন তারা অবাক হয়ে যান। সপ্তাহের শেষ দিন তিনি ও তার স্বামী ওই দম্পতির বাসায় চলে যেতেন বাচ্চাদের দুধ পান করানোর জন্য।

লাসেই বলেন, ‘অন্যের বাচ্চাকে বুকের দুধ পান করানোকে অনেকে নিষিদ্ধ ভাবেন। কিন্তু এটি খুবই প্রাকৃতিক ব্যাপার। অন্যের বাচ্চাকে দুধ পান করানো শুরু করার পর আমার জীবন বদলে গেছে।’

লাসেই অন্যের বাচ্চাতে দুধ পান করানোর অভিজ্ঞতা বর্ণনা করে বলেন, ‘লুনার দাঁত ওঠার আগেই দাঁত গজানো একটি বাচ্চাকে দুধ পান করাই। প্রথমে ভয় লাগছিলো। দুধ পান করানোর পর লক্ষ্য করি, প্রাকৃতিকভাবে আমার স্তনে দুধের পরিমাণ বৃদ্ধি পাচ্ছে। আমিও ছোট বেলায় আয়ার দুধ পান করেছি।’ 

লাসেই বলেন, ‘বিশ্বব্যাপী একটি ‘দুধ মা’ আন্দোলন গড়ে তুলতে চাই। এতে কর্মজীবী নারীরা উপকৃত হবেন। বাচ্চারাও যত্ন ও পুষ্টি থেকে বঞ্চিত হবে না। এজন্য আমি অনলাইনে নারীদের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা এ আন্দোলনে অংশ গ্রহণ করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। যুক্তরাষ্ট্রে দুধ মায়ের সংখ্যা ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে।’

তিনি দুধ মায়েদের জন্য পরামর্শ দেন, বাচ্চাদের ভালোবেসে আলিঙ্গন করতে হবে। কোনো বাচ্চাই আজ পর্যন্ত আমার দুধ পান করতে অস্বীকৃতি জানায়নি। আবার বাচ্চাদের সঙ্গে বেশি মায়া জড়ানো যাবে না। বাচ্চা যেন আপন মায়ের চেয়ে দুধ মায়ের প্রতি বেশি দুর্বল না হয়ে পড়ে। দুধ মায়ের কাজ হলো, বাচ্চাকে যত্ন করা ও তার পুষ্টি নিশ্চিত করা। দুধ মাকে বাচ্চার মায়ের প্রত্যাশা জানতে হবে। বাচ্চার দুধ পানের সময় তার মায়ের কাছ থেকে জেনে নিতে হবে। এতে দুধ মা তার বাচ্চার সঙ্গে মিলিয়ে রুটিন তৈরি করতে পারবে।’

লাসেই জানান, তার দ্বিতীয় সন্তান ভেগা গর্ভে আশার পর অন্যের বাচ্চাকে দুধ পান করানো বন্ধ করেননি। ইতিহাস থেকে জানা যায়, ইংল্যান্ডের রাজা-রানী, রাজকুমার–রাজকুমারীও দুধ মায়ের দুধ পান করেছেন।

লাসেই বলেন, ‘সামাজিক মাধ্যমে দুধপান করানোর অনেকগুলো ছবি পোষ্ট দিয়েছি। এতে খুব কম লোক প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন। বাস্তবতা হলো, মানুষ বিষয়টিকে এড়িয়ে গেছে।’

লাসেই বলেন, ‘প্রত্যেক মা বুকের দুধ বের করে বোতলে রেখে বাচ্চাকে দুধ পান করাতে পারেন। কিন্তু এতে বাচ্চা প্রাকৃতিক স্বাদ থেকে বঞ্চিত হবে।’

তিনি বাচ্চাকে জোর করে দুধ খাওয়ানো বন্ধ করার বিপক্ষে মত দিয়েছেন। ‘আমার মেয়ে লুনা চার বছর বয়স পর্যন্ত বুকের দুধ পান করেছে। এখন মাঝে মধ্যে বুকের দুধ খেতে চায়।’

তিনি বলেন, ‘অন্যের বাচ্চাকে দুধ পান করানোয় আমার স্বামী গর্বিত। আমার সন্তানরাও বুঝে আমি অন্যের বাচ্চাদের দুধ পান করাই। অন্যের বাচ্চাদের দুধ পান করানোর পরও অমার বাচ্চারা স্বাস্থ্যবান আছে। আমি দুধ মায়ের কাজটি বন্ধ করতে চাই না। বিশ্বব্যাপী ‘দুধ মা’ আন্দোলন ছড়িয়ে দিতে চাই।’

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/এসএম

উপরে