আপডেট : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ২২:৩৫

বাড়িওয়ালার জন্য ২০০ বোতল ‘মানবমূত্র’ রেখে গেলেন ভাড়াটিয়া!

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক
বাড়িওয়ালার জন্য ২০০ বোতল ‘মানবমূত্র’ রেখে গেলেন ভাড়াটিয়া!

অনেকদিন থেকেই ভাড়া দেয় না দুষ্টু ভাড়াটিয়া। শেষমেষ নিরূপায় হয়েই বাড়িওয়ালা ভাড়াটিয়াকে বললেন, ‘বাপু অনেক হয়েছে। আর ভাড়া দিতে হবে না। তুমি বাড়ি ছেড়ে দাও।’ এতে খুশি হয়েই বাড়ি ছেড়ে চলে গেলো ভাড়াটিয়া। হাপ ছেড়ে বাচঁলেন বাড়িওয়ালা।কাহিনীটা এখানেই শেষ হতে পারতো আর আট দশটা বাড়িওয়ালা ভাড়াটিয়ার মতোই। তা হলো না-

রাতের অন্ধকারে ভাড়াটিয়া যখন ঘর ছেড়ে চলে যায় তখন সে কিছু চমক রেখেছিল বাড়িওয়ালার জন্য। সকালে তালা ভেঙ্গে ঘরে ঢুকে সেই উপহারের চমকে ভিমরী খান বাড়িওয়ালা। আর তা হচ্ছে মদের বোতল। নানা ধরণের ২০০ বোতলে হুইস্কি দেখে বাড়িওয়ালা খুশি হলেও চেখে দেখার সময় তিনি বুঝতে পারেন তিনি আসলে ‘মানবমূত্র’ পান করছেন।

ঘটনাটি নিয়ে বেশ হাস্যরস জুগিয়েছে অস্ট্রেলিয়ানদের। কারণ ঘটনাটি সে দেশের মেলবোর্নের। খবর দ্যা মিররের।

মিরর জানায় মেলবোর্নের রোহান জেমস নামে ওই বাড়িওয়ালা ২০১৩ সালের অক্টোবর থেকে এক ভাড়াটিয়ার কাছ থেকে কোন ভাড়া আদায় করতে পারেনি। চলে যাবার সময় তার ওই কীর্তি দেখে হতভম্ভ হয়ে যান রোহান।

‘প্রথমে তালা ভেঙ্গে ঘরে ঢুকে দেখি টেবিলের উপরে দুটি হুইস্কির বোতলে ভরা হুইস্কি। এরপর ওয়ারড্রোব, রান্নাঘর যেখানেই হাত দিয়েছি সেখানেই এরকম ভর্তি অনেকগুলো বোতল মিলেছে। কিছু ক্যানও পেয়েছি যেগুলোতে ব্যবহার করা কনডমও ছিল অনেক। বাইরের টেবিলে জড়ো করা কয়েকটি ছবি তুলে একটি বোতল খুলতে যেয়েই ধরতে পারি এগুলো আসলে হুইস্কি নয়, মানবমূত্র।’

প্রথমে প্রচন্ড রাগ হয়। কিছুক্ষন স্তব্ধ হয়ে বসে থেকে ভাবতে থাকি কি করা যায়? পরে ছবি তুলে এর মজার দিকটি সবাইকে জানাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আপলোড করি। দেখি মানুষ বিষয়টিকে কিভাবে নেয়?

এমন ঘটনা বাংলাদেশে হলে বাড়িওয়ালা হিসেবে কেমন হতো আপনার প্রতিক্রিয়া? 

উপরে