আপডেট : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৭:৫৬

‘চরম আনন্দ’ পেতে ‘শশা’ দিয়ে সেক্স, সঙ্গীনির মৃত্যু

বিডিটাইমস ডেস্ক
‘চরম আনন্দ’ পেতে ‘শশা’ দিয়ে সেক্স, সঙ্গীনির মৃত্যু

বিছানায় চরম উত্তেজনাকর মুহুর্তগুলোতে বেগুন, কলা, শশা, গাজর বা এরকম আকৃতির নানা ধরণের সবজী ব্যাবহার করতো দক্ষিন পশ্চিম জার্মানির ছোট্ট শহর ম্যানহেইমের বাসিন্দা অলিভার ডায়েটম্যান ও রিকা ভারনা।

কিন্তু ২৪ ফেব্রুয়ারী রাতে, এক চরম উত্তেজনাকর মৃহুর্তে শশার কারণেই মৃত্যু হলো রিকার! সঙ্গত কারণেই হত্যা মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে অলিভারকে। তার সর্বনিম্ন ৫ বছরের জেল হতে পারে।

জার্মান পুলিশ বিভাগ জানায়, এই জুটি যৌন মিলনের সময় প্রায়শই এসব সবজী ব্যাবহার করতো। খবর ডেইলি মেইলের।

পুলিশের উদ্ধৃতি দিযে ডেইলি মেইল জানায়, সেই রাতে বিছানায় চরম উত্তেজনাকর মৃহুর্তে অলিভার রিকার মুখে একটি প্রমাণ সাইজের শশা ঢুকিয়ে দিয়ে ‘আনন্দ’ উপভোগ করে যাচ্ছিলেন। সে সময় হঠাৎ করে রান্নাঘরে ধোঁয়া উঠতে দেখে সেদিকে ছুটে যায় অলিভার। ততক্ষনে চুলোর মাংস পুড়ে ছাই।

সেগুলো চুলো থেকে নামিয়ে আগুন নিভিয়ে বিছানায় এসে দেখেন, রিকা অচেতন হয়ে পড়ে আছে।

অলিভার বলেন, ‘আমি তার মুখ থেকে শশাটি বের করার অনেক চেষ্টা করেও বের করতে পারিনি। পরে হাসপাতালে নিয়ে যাবার পর ডাক্তার রিকাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনে দেখা গেছে, সেই রাতে ভারনা চার ধরণের সবজী দিয়ে ‘আনন্দ’ উপভোগ করছিলো। মৃত্যু হয়েছে মূলত শশাটি গলায় আটকে দম বন্ধ হয়ে যাওয়ার কারণে।

‘কিন্তু তাই বলে এই দায় এড়াতে পারেনা রিকার সঙ্গী অলিভার। কারণ, সে একজন সচেতন নাগরিক। তারও দায়িত্ব রয়েছে এরকম বিপজ্জনক উপায়ে ‘আনন্দ’ না করার’- মন্তব্য রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবি রিয়ান হার্ড হফম্যানের।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/মাঝি

উপরে