আপডেট : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৩:৫৯

আত্মহত্যা করে সারা বিশ্বকে কাঁদিয়েছিল ৫ বছরের যে মেয়েটি!

বিডিটাইমস ডেস্ক
আত্মহত্যা করে সারা বিশ্বকে কাঁদিয়েছিল ৫ বছরের যে মেয়েটি!

মানুষ কখন নিজেকে শেষ করে দেয়? সে অভিজ্ঞতা আমাদের কারোরই নেই। প্রায় ৭১ বছর আগে এমন দু:সাহসীক পথে যাত্রা করেছিলো ৫ বছরের একটি ফুটফুটে মেয়ে। আসুন আমরা সে ঘটনার স্মৃতিচারণ করি।

ফুটফুটে সুন্দর মেয়েটির নাম ছিলো মার্লিন ডিমোন্ট। আমেরিকার ক্যালিফোর্নিয়ার সানফ্রান্সিসকোয় সুন্দর গোল্ডেন গেট ব্রিজে ও গিয়েছিল ওর বাবার সঙ্গে। গাড়ি চড়ে নতুন পোশাক পরে। বাবার সঙ্গে হাত ধরে ও ব্রিজের একেবারে ধারে গিয়ে দেখছিল নিচের দিকে।

বাবা অগাস্ট ডিমোন্ট ক্ষনিক পরই ওর পিছনে গিয়ে দাঁড়াল। নিরাপত্তারক্ষীরা ভাবলো, মেয়েটা বুঝি ব্রিজ থেকে নিচের দিকটা দেখতে চায়। কিন্তু এরপর যা ঘটল তা ভাবলেও শিউরে উঠতে হয়।

১৯৪৫ সালের সেই ঘটনা আজও মানুষকে কষ্ট দেয়। ফুটফুটে ৫ বছরের সেই শিশুটা ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করল। মুহূর্তের মধ্যেই পিছনে দাঁড়িয়ে থাকা তারা বাবাও একই কায়দায় আত্মহত্যা করল।

বাবা অগাস্ট ডিমোন্টের গাড়ি থেকে উদ্ধার হয় এক সুইসাইড নোট। যাতে লেখা, ‘আমি আর আমার মেয়ে আত্মহত্যা করলাম।’ (I and my daughter have committed suicide.)।

বাবা অগাস্ট মেয়েকে বলেছিলেন, ‘মরা ছাড়া আমাদের আর কোনও পথ নেই।’ ৫ বছরের শিশু সেই কথা হাসি মুখে মেনে নিয়ে ঝাঁপ দিয়েছিল সারা বিশ্বকে কাঁদিয়ে।

লিফট বসানোর কাজ করতেন অগাস্ট। ক’দিন ধরেই অর্থকষ্টে ভূগছিলেন। তবে ঠিক কী কারণে এই আত্মহত্যা তা সম্পূর্ণ স্পষ্ট ছিলোনা।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/মাঝি

উপরে