আপডেট : ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৭:৪৬

ভিডিও গেমস খেলতে খেলতে মাথা নষ্ট, ঠিকানা সোজা মানুষিক হাসপাতাল!!!

অনলাইন ডেস্ক
ভিডিও গেমস খেলতে খেলতে মাথা নষ্ট, ঠিকানা সোজা মানুষিক হাসপাতাল!!!

শহুরে জীবনে কম্পিউটার, ইন্টারনেট আর ভিডিও গেম ছাড়া বিনোদনের তেমন ভালো কোন উপায় নেই। তরুন তরুনি থেকে শুরু করে প্রায় সব বয়সের মানুষই হয়ে পরছে ভিডিও গেমের প্রতি আসক্ত। ভিডিও গেম খেলে যেমন ভাল সময় পার করা যায় তেমনি মাত্রাতিরিক্ত ভিডিও গেমের নেশায় পেয়ে বসলে তা ক্ষতির কারণ হয়ে উঠতে পারে। গেমার ভুলে যেতে পারে তার পারিপার্শ্বিকতা। খাবার না খাওয়া কিংবা স্কুল পালানোর মতো বিষয়গুলোর পাশাপাশি জীবনযাপনের ক্ষেত্রেও ব্যাপক পরিবর্তন ঘটে যেতে পারে।


ইন্ডিয়া টুডের এক খবরে বলা হয়েছে, ভারতের দিল্লির রাম মনোহর লোহিয়া (আরএমএল) হাসপাতালে গেম আসক্ত দুই সহদোরকে ভর্তি করা হয়েছে। একজনের বয়স ২২, আরেকজনের বয়স ১৯।


হাসপাতাল সূত্রের বরাতে টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আরএমএল হাসপাতালের মানসিক ওয়ার্ডে দুই সহদোরকে নিয়ে আসেন তাঁদের অভিভাবক। তাঁদের দুজনের মধ্যে বড় ভাই একটি প্রতিষ্ঠানে প্রকৌশল বিভাগে পড়েন আর ছোট ভাই দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র।


তাঁদের বাবা-মায়ের অভিযোগ, ভিডিও গেমে আসক্ত ওই দুই ভাই গেমিং কনসোল নিয়ে এতটাই আসক্ত হয়ে পড়েছিলেন যে নাওয়া-খাওয়া, ঘুম বাদ দিয়ে দিয়েছিলেন। এমনকি তাঁরা টয়লেটে যাওয়ার কথা ভুলে গিয়ে প্যান্ট পর্যন্ত ভিজিয়ে ফেলা শুরু করেছিলেন। তাঁদের উপস্থিতিতে বাড়িতে দুবার চুরি পর্যন্ত হয়েছে।


আরএমএলের মনস্তত্ত্ববিদ সাচদেব বলেন, অনেক অভিভাবক সন্তানদের অধিক সময় ইন্টারনেটে ব্রাউজিং-বিষয়ক সমস্যা নিয়ে আসেন। কিন্তু এই সহদোরের বিষয়টি মারাত্মক। তাঁদের স্বাভাবিক হতে এক মাসেরও বেশি সময় হাসপাতালের পুনর্বাসন প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যেতে হবে। তিনি আরও বলেন, ওই দুজনের মা-বাবা চাকরিজীবী। সন্তান যা চেয়েছে, তাই তাঁরা দিয়েছেন। সর্বশেষ প্রযুক্তি সুবিধার পণ্য থেকে হাতখরচের অর্থ পর্যন্ত। কিন্তু তাঁরা সন্তানের প্রতি মনোযোগ ও অভিভাবকের যে দায়িত্ব, তা পালনে ব্যর্থ হয়েছেন।

উপরে