আপডেট : ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ২১:২১

ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট অ্যাকসেপ্ট না করায় আমরণ অনশন!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট অ্যাকসেপ্ট না করায় আমরণ অনশন!

ফেসবুক প্রজন্মের প্রতিবাদের কারণটা অন্য রকম, কিন্তু ধরনটা সেই আগের মত। যে অস্ত্র কাজে লাগিয়ে দেশ স্বাধীনের দাবি চাওয়া হয়, গণতন্ত্রকে বাঁচানোর ডাক দেওয়া হয়, ক্ষমতা বদলের আশা করা হয়, সেই অস্ত্রই ব্যবহার করা হল ফেসবুকে বন্ধুত্ব করার জন্য!

ব্যাপরটা খোলাসা করে বলা যাক। এ ঘটনার প্রতিবাদী চরিত্রের নাম মাইক হর্ন। মাইকের খুব পছন্দ তারই স্কুলে পড়া  লুসি নামের এক মেয়েকে। মাইক এমনিতে লাজুক প্রকৃতির। তাই সে সেইভাবে কথা বলতে পারে না লুসির সঙ্গে। তাই মাইক চেয়েছিল লুসির সঙ্গে ফেসবুকে বন্ধুত্ব পাতাবে। কিন্তু বিধি বাম। বারবার ‘ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট’ পাঠানোর পরও তাঁর রিকোয়েস্ট অ্যাকসেপ্ট করেনি লুসি। এর পরই আমরণ অনশন করার সিদ্ধান্ত ফেসবুকে ঘোষণা করেন মাইক।

‘প্রতিবাদী’ এই তরুণের বন্ধুরা জানান, প্রথমটায় মাইকের এই ঘোষণা কেউ সেভাবে পাত্তা দেয়নি। কিন্তু একদিন, দুদিন, তিনদিন পেরিয়ে যাওয়ার পর ব্যাপরটায় সবার নজর যায়। লুসির বাসার সামনের রাস্তার ধারে বসে না খেয়ে দিনরাত কাটাচ্ছেন মাইক, তার সামনে শুধু একটা ল্যাপটপ। 

এই ঘটনার খবর স্থানীয় কিছু পত্রিকায় প্রকাশিত হতেই মাইকের ফেসবুকে বন্ধু ও ফলোয়ারের সংখ্যা লাফিয়ে অনেকটা বেড়ে গেল। মাইকের পাশে থাকতে অনেকেই চলে এলো অনশন মঞ্চে। শেষ অবধি অবশ্য চারদিনের মাথায় দাবি আদায় হলো। ভ্যালেন্টাইনের ঠিক একদিন আগে মাইকের 'ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট অ্যাকসেপ্ট' করল লুসি। আর এর পরই হাসি মুখে জুস মুখে দিয়ে অনশন ভাঙল মাইক।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/এসএম

উপরে