আপডেট : ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৪:৫১

দেবরের পুরুষাঙ্গ কেটে হাতে নিয়ে ভাবী গেলেন থানায়!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
দেবরের পুরুষাঙ্গ কেটে হাতে নিয়ে ভাবী গেলেন থানায়!

“স্বামীর বাইরে থাকার সুযোগ নিয়ে দেবর আমাকে দিনের পর দিন ধর্ষণ করেছে। শেষপর্যন্ত আমি আর থাকতে পারিনি। ছুরি দিয়ে তার যৌনাঙ্গ কেটে দিয়েছি। একমাত্র এই একটা উপায়ে তাকে আটকানো সম্ভব ছিল।” প্রমাণ হিসেবে দেবরের পুরুষাঙ্গ হাতে নিয়ে পুলিশ স্টেশনে এসে হাজির ভারতের ভোপালের চুরহাট এলাকার এক মহিলা।

১১ ফেব্রুয়ারি সকালে ওই মহিলা তাঁর তিন শিশুকে সঙ্গে নিয়ে থানায় ঢোকেন। তাঁর হাতে তখন কাটা পুরুষাঙ্গটি। সেইসঙ্গে তিনি পুলিশকে গোটা ঘটনার বিবরণ দেন। বলেন, তাঁর স্বামী চাকরির সুবাদের শহরের বাহিরের থাকেন। সেই সুযোগ নিয়ে দেবর তাঁকে দিনের পর দিন ধর্ষণ করত।

শত চেষ্টা করেও তাকে থামানো যায়নি। লোকলজ্জার ভয়ে নীরবে সহ্য করে গেছেন তিনি। আর তাকে আটকানোর এই একটা পথই খোলা ছিল তাঁর কাছে। তাই, নিরুপায় হয়ে তিনি ছুরি দিয়ে ধর্ষক দেবরের পুরুষাঙ্গই কেটে দেন।

পরে পুলিশ গিয়ে ওই ব্যক্তির ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করে। গ্রেপ্তার করা হয় সেই মহিলাকে। গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। 


সূত্রঃ ইনাদু ইন্ডিয়া

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/এসএম

উপরে