আপডেট : ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৮:৪২

পাকিস্তানে হিন্দু বিবাহ বিল পাশ; সময় লাগলো ৭০ বছর

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
পাকিস্তানে হিন্দু বিবাহ বিল পাশ; সময় লাগলো ৭০ বছর

দীর্ঘদিন ধরে পাকিস্তানে বসবাসরত হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকেরা হিন্দু বিবাহ রেজিস্ট্রেশন আইনের জন্য পাক সরকারের কাছে দাবি জানিয়ে আসছিলেন। অবশেষে ৭০ বছর পরে তাদের সেই দাবি আলোর মুখ দেখল। পাকিস্তানে প্রণয়ন করা হয়েছে হিন্দু বিবাহ আইন।এতদিন পাকিস্তানের হিন্দু দম্পতিরা আইনগতভাবে বিবাহ বিচ্ছেদও করতে পারতেন না।

সোমবার (০৮ফেব্রুয়ারি) দেশটির আইনসভায় পাস হয়েছে হিন্দু বিবাহ বিল, ২০১৫। সংখ্যাগরিষ্ঠ এমপিদের পাশাপাশি বিশেষভাবে আমন্ত্রিত ৫ হিন্দু সদস্যও বিলটিকে সমর্থন করেছেন বলে জানা গেছে।

বিলের খসড়া মোতাবেক, বিয়ের জন্য পাকিস্তানে বসবাসকারী হিন্দু পাত্র বা পাত্রীর বয়স অন্তত ১৮ হতেই হবে। এ নিয়ে বিশেষ দু’টি সংশোধনী প্রস্তাবও জুড়ে দেওয়া হয়েছে নয়া খসড়ায়। সোমবার বিলটিতে সমর্থন জানিয়েছে ক্ষমতাসীন দল পাকিস্তান মুসলিম লিগ (নওয়াজ)। তবে বিরোধী কয়েকটি দলের এমপিরা বিলটি নিয়ে বিরোধিতাও করেন।

এখন বিলটি পার্লামেন্টে অনুমোদন পেলেই আইনে পরিণত হয়ে যাবে। হিন্দুদের বিয়ে নিয়ে পাকিস্তানে নির্দিষ্ট কোনও আইন না থাকায় মহিলাদের নানাবিধ সমস্যায় পড়তে হয় বলে দীর্ঘদিনের অভিযোগ।

ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট খোলা থেকে শুরু করে ভিসা তৈরি-সহ নানা সরকারি কাজেই বিয়ের প্রমাণপত্র লাগে। হিন্দু বিবাহ আইন চালু হলে সে সব সমস্যা অনেকটাই মিটবে বলে মনে করছেন হিন্দুরা।

পাকিস্তানে বিবাহিত হিন্দু মহিলাদের জোর করে ধর্মান্তরিত করে ফের বিয়ে দেওয়া খুবই স্বাভাবিক একটি ঘটনা। নতুন এই আইনে এই সমস্যার কোনও সমাধান হবে কি না, তা নিয়ে পাকিস্তানের একটি দৈনিকে একাধিক প্রশ্ন তোলা হয়েছে।

আইন প্রণয়ন হলে বিয়ের প্রামাণ্য নথি থাকবে হিন্দু দম্পতিদের কাছে। অথচ, নতুন এই আইনের বলা হয়েছে হিন্দু দম্পতিদের একজনও ধর্মান্তরিত হয়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করলে নতুন এই আইন অনুযায়ী ততক্ষণাৎ বিয়ে বাতিল হয়ে যাবে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

উপরে