আপডেট : ১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৯:২৭

সেনা প্রধানকেই মেরে দিলেন কিম জং উন!

বিডিটাইমস ডেস্ক
সেনা প্রধানকেই মেরে দিলেন কিম জং উন!

কিম জং উন বলে কথা! তার বিরুদ্ধাচরনের একটাই শাস্তি ‘মৃত্যু’। যার মুখোমুখি হতে হলো নিজ দেশেরই সেনা প্রধান জেনারেল রি ইয়ং গিলকে। তার বিরুদ্ধে নাকি দূর্নীতির অভিযোগ উঠেছিলো।

কখনও ক্ষুধার্ত কুকুরের মুখে ঠেলে দিয়ে। কখনও কামানের তোপ। আবার কখনও সামনে থেকে গুলি করে। বিরোধী বা তার বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুললে এভাবেই প্রাণদণ্ড দেওয়ার একাধিক নজির রয়েছে উত্তর কোরিয়ার ‘স্বৈরাচারী’ শাসক কিম জং উনের। এবার কিম প্রাণদণ্ডের নির্দেশ দিলেন তার সেনাপ্রধানকে।

কিভাবে রি ইয়ং-এর মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছে তা না জানা গেলেও ধারণা করা হচ্ছে তাকেও নির্মম কোন উপায়েই পরপারে যেতে হয়েছে।

২০১৪ সালে সরকার বিরোধী কার্যকলাপের অভিযোগে কিম জং উন ক্ষুধার্ত কুকুরের পালকে খাইয়ে দেন নিজের কাকাকে। এবার খোদ দেশের সেনাপ্রধানকেই মেরে ফেলার নির্দেশে রীতিমতো তোলপাড় পড়ে গেছে গোটা বিশ্বে। ২০১৩ সালের অগাস্টে কিম জং উন যখন কিম ক্ষমতায় আসেন, তখন থেকেই সেনাপ্রধান ছিলেন রি ইয়ং গিল। কিমের খুব কাছের মানুষ হিসেবেই পরিচিত ছিলেন রি।

উত্তর কোরিয়ার সরকারি খবর অনুযায়ী, দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছিল রি-এর বিরুদ্ধে। সেই অভিযোগেই তিনি দোষী প্রমাণিত হন কিম জং উনের আদালতে। শুধু রি ইয়-ই নন, সরকারের একাধিক উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাকে সরিয়েছেন কিম। তাদের বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতা ও দক্ষিণ কোরিয়ার সোপ অপেরা দেখার অভিযোগ ছিল।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/মাঝি

উপরে