আপডেট : ৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৯:০৬

গণউপদ্রবের দায়ে ছত্তিশগড়ে এক ছাগল গ্রেপ্তার বিচার হবে আদালতে!

বিডিটাইমস ডেস্ক
গণউপদ্রবের দায়ে ছত্তিশগড়ে এক ছাগল গ্রেপ্তার বিচার হবে আদালতে!

অপরাধ করলে অপরাধীর সাজা হবেই। তা সে মানুষ হোক আর পশুই হোক। মানুষের জন্য থানা বা আদালত থাকলেও গৃহপালিত পশুদের জন্য রয়েছে খোয়াড়। সেখানে তাদের বিচার হয়না সত্যিই কিন্তু বন্দি থাকতে হয় মালিক উদ্ধার না করা পর্যন্ত।

তবে এবার বোধহয় ছাগলকেও বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হচ্ছে।

গত সোমবার ছাগল ও তার মালিক আব্দুল হাসানকে গ্রেপ্তারও করা হয়েছে। মঙ্গলবার আদালতে হাজির করার কথা রয়েছে। তাদের অপরাধ প্রমাণিত হলে দুই থেকে সর্বোচ্চ সাত বছরের জেল বা অর্থদণ্ড কিংবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিতও করা হতে পারে।

এমন আজব ঘটনা ঘটতে যাচ্ছে আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে জানানো হয়, জেলা ম্যাজিস্ট্রেট হেমন্ত রাত্রের বাড়িতে দু’দিন পরপরই হানা দেয় ছাগলটা। এর মালিক আব্দুল হাসানকে বহুবার সাবধান করেছেন বাগানের মালী। কিন্তু বেয়াড়া ছাগল কি আর তা শোনে! তার কাছে লোহার গেটও যেন নস্যি। লাফিয়ে তা পার হয়ে প্রতিবারই ম্যাজিস্ট্রেট সাহেবের শখের বাগানে ঢুকে পড়ে সে। মালীইবা আর কতোদিন সহ্য করবেন? এবার তাই চটে গিয়ে থানা গিয়ে অভিযোগই ঠুকে দিয়েছেন তিনি।

ছাগলটির বিরুদ্ধে ‍অভিযোগে বলা হয়েছে, এটি বাগানে ধ্বংসযজ্ঞ চালিয়েছে, গাছ ও সবজি খেয়ে ফেলেছে।

পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক আর পি শ্রীবাস্তব স্থানীয় সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, আব্দুল হাসানকে বহুবার সাবধান করেছেন বাগানের মালী। কিন্তু ছাগলটিকে তিনি নিয়ন্ত্রণ করেননি। তাই এবার থানায় অভিযোগ করেছেন। আমরা সে পরিপ্রেক্ষিতে ছাগল ও তার মালিককে গ্রেফতার করেছি।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আরকে 

উপরে