আপডেট : ৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৩:৪৬

ইউরোপকে শরণার্থী বন্যায় ভাসিয়ে দিতে পারি: তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
ইউরোপকে শরণার্থী বন্যায় ভাসিয়ে দিতে পারি: তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী

শরণার্থী সংকট নিয়ে বিরাজমান সমস্যা কাটিয়ে ওঠার জন্য তুরস্ককে তহবিলের যোগান দেয়া না হলে ইউরোপকে শরণার্থী-বন্যায় ডুবিয়ে দেয়ার এ হুমকি দিয়েছিলেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়েপ এরদোয়ান।

সদ্য ফাঁস হওয়া এক প্রতিবেদনে হুমকির বিষয়টি তুলে ধরা হয়েছে। ইউরোটুডে ডট জিআর নামের একটি ওয়েব সাইট প্রতিবেদনটি প্রকাশ করেছে।

প্রতিবেদনে এরদোয়ানের সঙ্গে ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট জ্যাঁ-ক্লদ জাংকার এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড টাস্কের গত নভেম্বরে অনুষ্ঠিত বৈঠকের কার্য-বিবরণী প্রকাশ করা হয়েছে। তবে বৈঠকের সঠিক তারিখ উল্লেখ করা হয় নি।

অবশ্য বার্তা সংস্থা রয়টার্স পরিবেশিত খবরে বলা হয়েছে, ২০১৫ সালের নভেম্বর মাসের ১৬ তারিখে অনুষ্ঠিত জি২০ শীর্ষ সম্মেলনের অবকাশে হয়ত এ বৈঠক হয়েছে।  বৈঠকে ইউরোপে আগত শরণার্থীদের সামাল দেয়ার জন্য তুরস্কের সহায়তা চাওয়া হয়।

সে সময়ে এরদোয়ান বলেন, শরণার্থীদের গ্রিসে বা বুলগেরিয়ায় যাওয়ার দরজা তুরস্ক ইচ্ছা করলেই খুলে দিতে পারে। বা তাদেরকে বাসে করে পাঠানো শুরু করতে পারে। ইউরোপ তখন শরণার্থীদের কি করে সামাল দিবে এবং ইউরোপ তাদের গুলি করতে পারবে কি? বলে প্রশ্ন ছুঁড়ে দেন এরদোয়ান।

শরণার্থী সংকট সামাল দেয়ার জন্য দুই বছরে তুরস্ককে ৬০০ কোটি ইউরো দিতে হবে বলেও দাবি করেন তিনি। অনেক বাক্য বিনিময়ের পর ৩০০ কোটি ইউরো নিতে সম্মত হয় তুরস্ক। শরণার্থীদের আবাসিক অবস্থা উন্নত করতে এ অর্থ ব্যয় হবে বলে এ সময়ে প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।

এ ছাড়া, গ্রিসে শরণার্থীদের ঢোকার হার কমিয়ে আনার বিনিময়ে তুর্কি নাগরিকদের বিনা ভিসায় ইউরোপ সফরের বিষয়টি ফয়সালা করার এবং তুরস্ককে ইউরোপীয় ইউনিয়নে দ্রুত অন্তর্ভুক্ত করার পদক্ষেপ নেয়ার আশ্বাসও এ সময়ে এরদোয়ান আদায় করেছিলেন ইউরোপীয় নেতাদের কাছ থেকে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

উপরে