আপডেট : ১৯ জানুয়ারী, ২০১৬ ১১:৫২

ভারত গেলেই ধর্ষিত হবেন শশীর বান্ধবী মেহর!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
ভারত গেলেই ধর্ষিত হবেন শশীর বান্ধবী মেহর!

শশী থারুরের সূত্র ধরেই পাকিস্তানি সাংবাদিক মেহর তারারকে ভারতীয়রা চেনে। শশীর সঙ্গে বিতর্কিত সম্পর্কের জন্য বহুবার তিনি ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে শিরোনাম হয়েছেন। শশীর স্ত্রী সুনন্দার মৃত্যু রহস্যেও মেহরের নামটি জড়িয়ে আছে।

এবার এক ভারতীয় তাকে ধর্ষণের হুমকি দিয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন মেহর। মঙ্গলবার তিনি হুমকি-টুইটটিতে মুম্বই পুলিশকে ‘ট্যাগ’ করার পর বিষয়টি জানাজানি হয়।

প্রতিদিনই অসংখ্য টুইট করেন মেহর। তার মধ্যে কিছু টুইটে ভারত-পাক সম্পর্কের কথাও লেখেন তিনি। গতকাল সন্ধ্যায় পরপর অনেকগুলি টুইট করেছিলেন। যেমন, সংবাদসংস্থা এএনআইয়ের একটি খবর রিটুইট করে মেহর জানান, পাকিস্তানের দৃষ্টিহীন ক্রিকেটারদের একটি দল টি-২০ প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে পঞ্জাবের অমৃতসরে গিয়েছে।

এ নিয়ে মেহর মন্তব্য করেন, ‘তা হলে যতক্ষণ না তাদের (ভারত সরকারের) নজরে পড়ছে, ততক্ষণ ভারতে পাকিস্তানের খেলোয়াড়েরা যেতেই পারেন।’

কেজরীবালের মুখে কালি ছোড়া প্রসঙ্গে মেহরের টুইট, ‘যাঁর সঙ্গে মতে মিলবে না, যার কথা পছন্দ হবে না, তার মুখে কালি ছুড়ব— এটা কোনও সমাধান নাকি? আলোচনা করে সমাধান করা উচিত।’

এরপর তারক ফাতা নামে টরন্টোর এক লেখক মেহরকে ‘ট্যাগ’ করে টুইট করেন, ‘মেহর তারারের মতো পাকিস্তানিদের সমস্যা হল, কোনও মুসলিম ছেলে কোনও অমুসলিম মেয়েকে ধর্ষণ করলে তাতে তারা কোনও দোষ খুঁজে পান না’।

এই টুইটের পরেই গণেশ আইয়ার নামে এক ব্যক্তি মেহর এবং সাংবাদিক রাজদীপ সরদেশাইকে ট্যাগ করে টুইট করেন, ‘মেহর, ভারতে আসার সাহস দেখাবেন না। আপনার ওই নোংরা মন্তব্যের পর ভারতে অনেক হিন্দু ছেলে অপেক্ষা করে রয়েছে আপনাকে ধর্ষণ করবে বলে।’

তবে মেহরের কোন মন্তব্যকে গণেশ ‘নোংরা’ বলেছেন, তা বোঝা যায়নি। কারণ, ধর্ষণ-সংক্রান্ত টুইটটি মেহরের করা নয়। এর পরেই মেহরকে টুইটারে ভারত এবং পাকিস্তানের অনেকে জানান যে, বিষয়টি তার পুলিশকে জানানো উচিত। 
গণেশ পরে টুইটটি মুছে দেন। তবে মেহর ওই টুইটের স্ক্রিন-শট তুলে রাখায় তা রিটুইট করতে অসুবিধা হয়নি।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/পিএম

উপরে