আপডেট : ৬ জানুয়ারী, ২০১৬ ১৯:৫৬

বৃটিশদের কাঁপিয়ে দেয়া জিহাদি আসলে ভারতীয় ‘সিদ্ধার্থ ধর’!

বিডিটাইমস ডেস্ক
বৃটিশদের কাঁপিয়ে দেয়া জিহাদি আসলে ভারতীয় ‘সিদ্ধার্থ ধর’!

ইসলামিক স্টেট’র (আইএস) প্রচারিত সর্বশেষ ভিডিওতে যে প্রধান সন্দেহভাজনকে দেখা গেছে সেই ব্যক্তি নাকি ভারতীয় বঙশোদ্ভূত ব্রিটিশ নাগরিক সিদ্ধার্থ ধর। তার পরিবারের সদস্যরা ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বিহারে থাকে।

বিবিসিকে ব্রিটিশ এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ওই ভিডিও নিয়ে তদন্তের কেন্দ্রে আছেন সিদ্ধার্থ।

প্রকাশিত ওই ভিডিওতে পাঁচ ব্যক্তিকে হত্যার দৃশ্য দেখানো হয়। এদের ব্রিটিশ গুপ্তচর হিসেবে অভিহিত করে আইএস।

ওই ব্যক্তি সিদ্ধার্থ ধর বলে সরকারিভাবে নিশ্চিত করা না হলেও ওই কর্মকর্তা বলেছেন, “অনেকেই তাকে সিদ্ধার্থ বলেই ভাবছেন।”

আবু রুমায়শা হিসেবেও পরিচিত সিদ্ধার্থ ২০১৪ সালে জামিনে মুক্তি পেয়ে পালিয়ে যান।

চার সন্তানের জনক পূর্ব লন্ডনের এই বাসিন্দাকে সন্ত্রাসে মদদ দেওয়ার অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। কিন্তু জামিনে মুক্তি পেয়ে তিনি সিরিয়ায় চলে যান এবং আইএস-এ যোগ দেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

যুক্তরাজ্যের এক হিন্দু (সনাতন) পরিবারে জন্ম নেয়া সিদ্ধার্থ ধর হিন্দু ধর্ম ছেড়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে মৌলবাদী গোষ্ঠী আল মুহাজিরুনে যোগ দিয়েছিলেন।

তার বিরুদ্ধে সিরিয়ায় যাবার আগে যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন মসজিদের সামনে উগ্রপন্থি বক্তব্য ও প্রচারণার  অভিযোগ রয়েছে। তিনি পূর্ব লন্ডনে বাস করতেন।

সিদ্ধার্থ ধর যুক্তরাজ্যে সন্ত্রাসী আইনের আওতায় নিষিদ্ধ মৌলবাদী সংগঠন আল মুহাজিরুন নেটওয়ার্কের একজন নেতৃস্থানীয় সদস্য ও মুখপাত্র ছিলেন।

তিনি যুক্তরাষ্ট্র, ইসরায়েল, আরব দেশগুলোর সরকার এবং গোষ্ঠীটির বিবেচনায় ইসলামবিরোধী কারণে আহূত সমাবেশে নিয়মিত অংশ নিতেন।

চার সন্তানের জনক সিদ্ধার্থ ধরের আগে আইএসের ভিডিওতে ‘জিহাদি জন’ নামের একজন হাজির হতেন। কুয়েতি বংশোদ্ভূত ওই ব্যক্তির প্রকৃত নাম মোহাম্মদ এমওয়াজি। তিনিও একজন ব্রিটিশ নাগরিক ছিলেন।

সম্প্রতি এক বিমান হামলায় ‘জিহাদি জন’ নিহত হয়েছেন বলে যুক্তরাষ্ট্র দাবি করেছে।

এরআগে, সিদ্ধার্থ ধরের ঘনিষ্ঠ একজন দাবি করেছিলেন, কোনো সন্দেহ নেই ভিডিওর ওই কণ্ঠস্বর তার (সিদ্ধার্থ)।

বিবিসিকে সিদ্ধার্থের বোন কণিকা ধর বলেছেন, কণ্ঠস্বর শোনার পর মনে হয়েছিল এটি তার ভাইয়েরই। আর এতে তিনি ভয় পেয়ে যান। যদিও তিনি ভিডিও ক্লিপ দেখেছেন কিন্তু তবুও সম্পূর্ণ নিশ্চিত হতে পারেননি যে কণ্ঠস্বরটি তার ভাইয়েরই কিনা।

আইএসের সাম্প্রতিক ভিডিওতে দেখা যায়, বন্দুকহাতে একজন মুখোশ পরিহিত ব্যক্তি উগ্রপন্থি গোষ্ঠীটির বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনকে উপহাস করছেন।

ভিডিওতে ওই ব্যক্তি আরও বলেন, “আমরা আমাদের জিহাদ চালিয়ে যাবো, সীমান্ত ভেঙে ফেলবো এবং একদিন আপনার (ক্যামেরন) দেশেই শরিয়া আইন প্রবর্তন করবো।”

এ ব্যাপারে ক্যামেরন মন্তব্য করেছেন, ওই ভিডিওটি একটি গোষ্ঠীর ‘বেপরোয়া কর্মীর’ যারা তাদের ‘এলাকা হারাচ্ছে।”

ধারণা করা হচ্ছে এই ব্যক্তিই সিদ্ধার্থ ধর।

ব্রিটিশি পুলিশ জানিয়েছে, আনুমানিক ৭০০ ব্রিটিশ নাগরিক জিহাদি গোষ্ঠীগুলোকে সহায়তা কিংবা তাদের হয়ে যুদ্ধ করার উদ্দেশে সিরিয়া ও ইরাক ভ্রমণ করেছেন। এদের মধ্যে অর্ধেকই পুনরায় ব্রিটেনে ফিরে এসেছেন।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/পিএম

উপরে