আপডেট : ২৩ ডিসেম্বর, ২০১৫ ১১:২২

দরিদ্র ইরানিদের জন্য ‘করুণার দেয়াল’

নিজস্ব প্রতিবেদক
দরিদ্র ইরানিদের জন্য ‘করুণার দেয়াল’

একদিকে প্রবল শীতের কামড়, অন্যদিকে আর্থিক অনটন – এই দু`য়ের মাঝখানে পড়েও ইরানের জনগন হাত গুটিয়ে বসে থাকেন নি।আর্ত মানবতার সেবায় স্বত:স্ফূর্তভাবে তারা গড়ে তুলেছেন নানা সেবামূলক প্রকল্প। এগুলোর মধ্যে সবচেয়ে নজর কেড়েছে যেটি তার নাম `দিওয়ার-ই মেহেরবানি` বা ‘করুণার দেয়াল’।

ঘটনার শুরু ইরানের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় শহর মাশাদে। সেখানে বেশ শীত। গরীব মানুষজন বেশ কষ্ট পাচ্ছেন হাড়কাপাঁনো শীতে।

কেউ একজন মাশাদের এক দেয়ালে বেশ কিছু হুক আর হ্যঙ্গার ঝুলিয়ে লিখে রেখেছিলেন: আপনার যদি প্রয়োজনে না লাগে তাহলে এখানে দান করুন। আর যদি আপনার প্রয়োজন হয় তাহলে এখান থেকেই তুলে নিন।এর পর সেখানে কোট, প্যান্ট আর নানা ধরনের গরম কাপড়চোপড় ঝুলতে দেখা যায়।

করুণার দেয়াল যিনি প্রথম গড়েছিলেন তিনি জনসমক্ষে আসতে চান না বলে জানিয়েছে মাশাদের এক খবরের কাগজ।এরপর এই ধরনের করুণার দেয়াল গড়ে উঠেছে ইরানের প্রধান শহরগুলিতেও। আর এ নিয়ে ফেসবুক, টুইটারের মতো সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলিতে শুরু হয়েছে তুমুল হৈচৈ।

একজন ফেসবুক ইউজার পোস্ট করেছেন: ‘এটি একটি মহান উদ্যোগ। আশা করবো সারা দেশে এটা ছড়িয়ে পড়বে।’ বন্দর নগরী শিরাজ থেকে একজন পোস্ট করেছেন: ‘দেয়াল মানেই বিভেদ। কিন্তু আমাদের অঞ্চলে এই দেয়ালই আজ মানুষকে এক জায়গায় এনেছে’।

তবে কেউ কেউ বলছেন, ইরানে হাসান রোহানির সরকার যে কার্যত ব্যর্থ হয়েছে, এটা তারই জ্বলজ্যান্ত প্রমাণ।

ইরান ধনী দেশ। মানুষ এখানে একে অপরকে সাহায্য করে। কিন্তু যারা ক্ষমতায় বসে আছে এ নিয়ে তাদের কোন মাথাব্যথা নেই। ফেসবুকে মন্তব্য করেছেন আরেকজন,  ইরানের যে সম্পদ রয়েছে তাতে দেশে একজনও গরীব থাকার কথা না।

গত জুলাই মাসে পশ্চিমা দেশগুলোর সাথে শান্তি চুক্তির পর ইরানের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা ধীরে ধীরে উঠতে শুরু করেছে।কিন্তু এরপরও দেশটিতে প্রবল আর্থিক মন্দা বিরাজ করেছে। সরকারি হিসেব অনুযায়ী পুরো দেশে গৃহহীন মানুষের সংখ্যা ১৫,০০০। কিন্তু বেসরকারি হিসেব অনুযায়ী শুধুমাত্র রাজধানী তেহরানেই রয়েছে সমপরিমান গৃহহীন। সারা দেশে এই সংখ্যা আরো বেশি হবে।

তবে 'দিওয়ার-ই মেহেরবানি'র বাইরেও নানা ধরনের উদ্যোগ রয়েছে সাধারণ মানুষের তরফ থেকে।

‘প্যায়েন-এ কার্তনখাবি’ (গৃহহীনতার অবসান) নামে যে আন্দোলন তাতে রাস্তার মোড়ে মোড়ে ফ্রিজ বসিয়ে দেয়া হচ্ছে। গরীবদের জন্য মানুষজন সেখানে খাবার রেখে যাচ্ছেন।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আরকে

উপরে