আপডেট : ২২ জুলাই, ২০১৭ ২১:২৩

জেনে নিন সস্তায় ভারতের বিমান টিকিট বুকিং এর উপায়!

অনলাইন ডেস্ক
জেনে নিন সস্তায় ভারতের বিমান টিকিট বুকিং এর উপায়!

প্রতিবেশী দেশ হওয়ার কারণে বিদেশ যাওয়া বলতে বাংলাদেশিরা মূলত ভারত যাওয়াকেই বোঝেন! ভারতে যাবার জন্য অনেক গুলো স্থল বন্দর আছে দেশের চারপাশে। স্থল বন্দর এর মাঝে সবচেয়ে জনপ্রিয় সম্ভবত বেনাপোল বন্দরই। এখান দিয়ে প্রতিদিন হাজারে হাজারে মানুষ ভারতে যান এবং ফেরত আসেন। বিশেষ করে ঈদের সময়গুলোতে এই ভিড় বেড়ে যায় দশগুণ। তাই অনেকেই ভাবেন বিকল্প ব্যবস্থা হিসেবে কম ঝামেলার বিমান ভ্রমণ, আবার অনেকেই স্থলপথে ভ্রমণ একেবারেই পছন্দ করেন না। তাদের জন্যও এই পোস্টটি।

আজ আমরা কথা বলব ঢাকা থেকে ভারতের দুটো জনপ্রিয় ভ্রমণ শহরের বিমান ভাড়া ও রুট নিয়ে। তথ্যসূত্র হিসেবে ব্যবহার করেছি মেক মাই ট্রিপ.কম () নামে বিশ্ববিখ্যাত ট্রাভেল বুকিং ওয়েবসাইট। বলা হয়ে থাকে, এই সাইটের চেয়ে সস্তায় আর কেউ বিমান টিকিট দেয় না। এই উদাহরণ গুলো ব্যবহার করে আপনি অন্যান্য শহরগুলোর ভাড়া ও রুট বের করে ফেলতে পারবেন।

বেশ কিছু বিষয় আগে থেকে জেনে রাখা জরুরী,

মেক মাই ট্রিপ থেকে টিকিট করতে হলে কোন না কোন ইন্টারন্যাশনাল ক্রেডিট কার্ড থাকতে হবে। নিজের না থাকলে চেনা জানা কারও থেকে সহযোগিতা নিন।

* কারও সহযোগিতা না পেলে যে ফ্লাইট টা বাছাই করেছেন, সেটার নম্বর নিয়ে আপনার বিশ্বস্ত ট্রাভেল এজেন্সির সাথে কথা বলুন, তারা কিছু প্রফিট রেখে আপনাকে টিকিট সংক্রান্ত বিষয়ে সহযোগিতা করতে পারবে।

* ভ্রমণের মাস খানেক আগে টিকিট বুকিং দিয়ে রাখলে সস্তায় পাবার সুযোগ রয়েছে। আবার বুকিং দেবার সময় ছুটির দিন গুলোর তুলনায় কর্ম-দিবসগুলোতে তুলনামূলক সস্তা পাওয়া যায়। তাই কম খরচে টিকিট পেতে সেভাবে টিকিট ক্রয় করুন।

* ভিন্ন ভিন্ন এয়ারলাইন্স কোম্পানি ভেদে একই দিনের একই গন্তব্যের ভাড়া ভিন্ন হতে পারে। অনেক সময় আপনার প্রত্যাশার দ্বিগুণ কিংবা অর্ধেক হওয়াও অসম্ভব কিছু নয়।

* সপ্তাহের বিভিন্ন দিনগুলোতে যেহেতু ভাড়া ভিন্ন হয়, তাই একই সাথে আশে পাশের তারিখগুলোতেও সার্চ করে দেখুন আরও ভাল কোন ডিল পাওয়া যায় কি না।

* শুধু সস্তা টিকেট দেখে হিসাব না করে একই সাথে গুগল করে সেই বিমান কোম্পানির রেপুটেশনও জেনে নিন। সস্তার তিন অবস্থা হতে পারে যে কোন সময়ই।

* বুকিং সাইটগুলোতে যে ভাড়া দেয়া থাকে, বেশিরভাগ সময় সেটা হয় বেসিক ভাড়া। এর সাথে পরে যুক্ত হতে পারে বিভিন্ন রকম সারচার্জ। তাই কোন সিদ্ধান্ত নেবার আগে নিশ্চিত হয়ে নিন যে আপনাকে ঠিক কত টাকা ব্যয় করতে হবে। মেক মাই ট্রিপ এর ক্ষেত্রে লাল রং এর বুক লেখা বাটনটি ক্লিক করলে সঠিক মূল্যটি পেয়ে যাবেন।

* এখানে সমস্ত হিসেব করা হয়েছে একজন যাত্রীর ওয়ানওয়ে ট্রিপ এবং ইকোনমিক সীট হিসেব করে। রাউন্ড বা যাওয়া আসা ট্রিপ হলে সেটার হিসেব ভিন্ন হবে।

এখানে দেখুন, আগামী ২৪শে জুলাই ধরে সার্চ করে ঢাকা থেকে কলকাতা ট্রিপ এর কয়েকটি ভিন্ন ভিন্ন এয়ার কোম্পানির খরচের হিসাব পাওয়া গেছে। উপরের লাল চারকোনা বক্সটায় দেখুন, সেখানে আশে পাশের দিনগুলোর খরচের সাধারণ খরচের হিসাব দেখা যাচ্ছে। নিচের লাল চারকোনা বক্সটায় দেখুন, ভিন্ন ভিন্ন এয়ার কোম্পানির ভাড়ার তালিকা দেখা যাচ্ছে। একদম উপরে দেখুন, সেখানে আপনি যে এয়ারপোর্ট থেকে যাবেন, যেখানে যাবেন, তারিখ, কতজন যাত্রী, ইকোনমিক নাকি বিজনেস ক্লাস ইত্যাদি ঠিক করে দিতে পারেন। আমরা ব্যবহার করেছি ঢাকা থেকে কলকাতা রুট, ২৪ তারিখ, ওয়ান ওয়ে ট্রিপ, একজন যাত্রী ও ইকোনমিক সীট।

এবারেও আগের মতই একইভাবে ঢাকা থেকে দিল্লী বিমানের হিসেব দেয়া আছে। উপরের লাল চারকোনা বক্সটায় আবারও দেখুন, সেখানে আশে পাশের দিনগুলোর খরচের সাধারণ খরচের হিসাব দেখা যাচ্ছে। নিচের লাল চারকোনা বক্সটায়ও দেখুন, ভিন্ন ভিন্ন এয়ার কোম্পানির ভাড়ার তালিকা দেখা যাচ্ছে। একদম উপরে দেখুন, সেখানে আপনি যে এয়ারপোর্ট থেকে যাবেন, যেখানে যাবেন, তারিখ, কতজন যাত্রী, ইকোনমিক নাকি বিজনেস ক্লাস ইত্যাদি ঠিক করে দিতে পারেন। এখানে আমরা ব্যবহার করেছি ঢাকা থেকে দিল্লী রুট, ২৪ তারিখ, ওয়ান ওয়ে ট্রিপ, একজন যাত্রী ও ইকোনমিক সীট।

 আশা করা যায় এই তথ্যগুলো আপনার ভ্রমণ পরিকল্পনায় অনেকটাই সহযোগিতা করবে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

উপরে