আপডেট : ১৩ নভেম্বর, ২০১৮ ১৩:৩৮

বেশি অ্যান্টিবায়োটিক খেলে কী হয়?

অনলাইন ডেস্ক
বেশি অ্যান্টিবায়োটিক খেলে কী হয়?

সামান্য সমস্যা হলেই অ্যান্টিবায়োটিক খাওয়ার অভ্যাস রয়েছে আমাদের অনেকেরই। বিশেষ করে আবহাওয়া পরিবর্তনের এই সময়ে সর্দি-কাশির আক্রমণ হোক বা ব্যাকটেরিয়া জনিত জ্বরে অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ বেশি খাওয়া হয়। কিন্তু দিনের পর দিন এই ধরনের ওষুধ খাওয়ার ভাল-খারাপ দিক নিয়ে বিশ্ব জুড়েই গবেষণা চলছে।

চিকিৎসকরা বলেন, কিছু সাবধানতা মেনে অ্যান্টিবায়োটিক খেলে তা শরীরের ক্ষতি করে না, বরং নিয়ম না মেনে বা মাঝপথে বন্ধ করে দিলে শরীরে অ্যান্টিবায়োটিকের নেতিবাচক প্রভাব পরে। আবার যে কোনো অসুখেই অ্যান্টিবায়োটিক খাওয়া মোটেই ভাল নয়।

দিনের পর দিন একটানা অ্যান্টিবায়োটিক খেতে খেতে শরীরের নিজস্ব প্রতিরোধ ক্ষমতা চলে যায়। তাই প্রয়োজন না হলে তাই অ্যান্টিবোয়োটিক না খাওয়াই ভাল।

নিয়ম

আগে কোনো অসুখ হয়ে থাকলে, পরে আবার সেই অসুখ হলে আমরা চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ না নিয়ে আগের অ্যান্টিবায়োটিক খেয়ে নেই। ছোট কোনো অসুখে একেবারেই নিজে সিদ্ধান্ত নেবেন না। শরীরের অভ্যন্তরীণ অবস্থা ও অসুখের মাত্রা না বুঝে চিকিৎসকের দেয়া পুরনো অ্যান্টিবোয়োটিক খাওয়া উচিত নয়।

অ্যান্টিবায়োটিক খাওয়ার সময় নিয়ম করে দুই-তিন লিটার পানি খান। অনেকেই পানি প্রচুর খেতে পারেন না। সে ক্ষেত্রে ফলের রস, ডালজাতীয় খাবার খান।

অ্যান্টিবায়োটিক খেলে চিকিৎসকের পরামর্শ মতো সঙ্গে অ্যান্টাসিড ও ভিটামিন খান।

অ্যান্টিবায়োটিক খেলে হজম ক্ষমতা কিছুটা কমে। তাই সহজপাচ্য খাবার খান। তেলমসলা জাতীয় খাবার, ফাস্ট ফুড একেবারেই খাবেন না। বরং এসব এড়িয়ে হজমে সহায়ক খাবার খান।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/রুমা

উপরে