আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০৯:৩২

বিজ্ঞান বলছে চুল পড়া বন্ধ করে 'গ্রীন টি'

অনলাইন ডেস্ক
বিজ্ঞান বলছে চুল পড়া বন্ধ করে 'গ্রীন টি'

চুলপড়া বন্ধে এবং নতুন চুল গজাতে গ্রিন টির বিকল্প নেই। সম্প্রতি এক গবেষণায় এমনটাই প্রমাণিত হয়েছে। এতে উপস্থিত ক্যাটসিয়াসিন, ক্রোমিয়াম, পলিফেনল ও অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি জাতীয় উপাদান শরীরে প্রবেশ করার পর চুলের গোড়ায় পুষ্টি ঘাটতি তো দূর হয়ই, সেই সঙ্গে চুল মজবুতও হয়ে ওঠে। চুল পড়ার আশঙ্কা কমে যায় ও নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে। তবে গ্রিন টি যে শুধু চুল পড়া বন্ধ করে, তা কিন্তু নয়। নিয়মিত গ্রিন টি পান দেহের নানাবিধ সমস্যাও দূর করতে সাহায্য করে। আসুন তবে জেনে নেই গ্রিন টি এর কিছু কার্যকারিতা সম্পর্কে: হজম শক্তির উন্নতি ঘটে প্রতিদিন দু’বার গ্রিন টি খেলে হজম শক্তি বৃদ্ধি পায়। এতে উপস্থিত অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদান শরীরে প্রবেশ করা মাত্রই পেটের প্রদাহ কমিয়ে ফেলতে সাহায্য করে। ফলে পেটের স্বাস্থ্যের উন্নতি তো ঘটেই, সেই সঙ্গে হজম ক্ষমতাও চাঙ্গা হয়ে ওঠে। দাঁতের সমস্যা দূর করে গ্রিন টিতে রয়েছে ক্যাটসিয়াসিন নামক উপাদান যা দাঁতের কোণায় লুকিয়ে থাকা ব্যাকটেরিয়ার উপস্থিতি ধ্বংস করতে সাহায্য করে। তাই, নিয়মিত গ্রিনটি যুক্ত পানীয় পান করলে টিতে স্বাভাবিকভাবেই দাঁতে ক্ষয় ধরার আশঙ্কা কমে যায় ও মুখের ভেতরের নানা রোগ থেকে মুক্তি মেলে। স্ট্যামিনা বাড়াতে গ্রিন টি প্রতিদিন সকালে গ্রিন টি খেলে দেখবেন স্টেমিনা কেমন তড়তড়িয়ে বেড়ে যাচ্ছে। তাই তো পুরো দিন ব্য়াপী চনমনে থাকতে শুধু সকালে নয়, সারাদিনে বেশ কয়েকবার পান করতে পারেন এই হেল্থ ড্রিঙ্কসটি। ফল পাবেন হাতেনাতে। রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে যারা উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা ভুগছেন, তারা সুস্থ থাকতে নিয়মিত গ্রিন টি পান করুন। কারণ একাধিক গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে, নিয়মিত ১-২ কাপ গ্রিন টি পানে শরীরে কিছু উপাদানের মাত্রা বৃদ্ধি পেতে শুরু করে। এর প্রভাবে রক্তচাপ স্বাভাবিকভাবেই নিয়ন্ত্রণে চলে আসে। ত্বকের যত্নে গ্রিন টি নিয়মিত গ্রিন টি পান করলে দেহের ভেতরের অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ও অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদানের মাত্রা বৃদ্ধি পেতে শুরু করে। এর প্রভাবে ত্বকের স্বাস্থ্যেরও উন্নতি ঘটে। এছাড়াও ত্বকে বিভিন্ন ধরনের স্কিন ডিজিজের প্রকোপ কমে যায়। ডায়বেটিকস দূরে থাকে গ্রিন টি পান করলে শরীরের মেটাবলিক সিস্টেম ফাংশনের উন্নতি ঘটতে শুরু করে। ফলে রক্তে শর্করার মাত্রা বৃদ্ধি পাওয়ার আশঙ্কা কমে যায়। তাই যাদের পরিবারে ডায়বেটিকস রয়েছে তাদের প্রতিদিন দু’বার করে গ্রিন টি খাওয়ার পরামর্শ দিন। উপকার পাওয়া যাবে খুব দ্রুতই।

উপরে