আপডেট : ১১ ডিসেম্বর, ২০১৭ ১৩:০৭

অবাধ মেলামেশার হতে পারে গনোরিয়া

অনলাইন ডেস্ক
অবাধ মেলামেশার হতে পারে গনোরিয়া

এটি এমন একটি যৌন রোগ যা বেশির ভাগ মহিলাদের ক্ষেত্রে উপসর্গবিহীন থাকে এবং ৮৫-৯০% পুরুষের উপসর্গ থাকে। এ জীবাণু মুখের মধ্যে প্রবেশ করলে গলা ব্যথা ও কাশি এবং পায়ুপথে প্রবেশ করলে মলদ্বার ও রেকটামে প্রদাহ বা ইনফেকশন হয়।

কীভাবে ছড়ায়  

পুরুষ-মহিলার অবাধ মেলামেশার মাধ্যমে ছড়ায়। জীবাণুমুক্ত তোয়ালে বা কাপড় ব্যবহার করলেও গনোরিয়া হতে পারে।

নবজাতকের গনোরিয়া  

প্রসবকালে যদি গনোরিয়ায় আক্রান্ত হয় তবে নবজাতকের চোখ আক্রান্ত হয়। চোখ দিয়ে পানি পড়ে ও পরে ঘন পুঁজ ঝরতে থাকে।

উপসর্গ  

গনোরিয়ায় আক্রান্ত মহিলারা সাদা স্রাব নিয়ে চিকিৎসকের কাছে আসতে পারে। সেক্ষেত্রে ল্যাবরেটরি পরীক্ষার মাধ্যমে গনোরিয়া শনাক্ত করা যায়। এছাড়া মহিলারা প্রস্রাবে জ্বালা-পোড়া, বারবার প্রস্রাব হওয়া, মিলনের পর রক্ত বের হওয়া সমস্যায় ভোগে। সবচেয়ে বড় সমস্যা হল তলপেটে ব্যথা বা প্রদাহ। পুরুষদের প্রস্রাবে জ্বালা-পোড়া বা কুট কমে কামড় দেয়ার মতো অনুভূতি হয়। প্রস্রাবের রাস্তা দিয়ে বিজল ও ঘন পুঁজ বের হতে পারে।

চিকিৎসা  

চিকিৎসকের পরামর্শে মুখে খাওয়ার বড়ি বা ইনজেকশনের পাশাপাশি আক্রান্ত স্থানে মলম লাগানোর প্রয়োজন হয়। পরিষ্কার ভেজা তুলা দিয়ে পুঁজ পরিষ্কার করতে হবে ও স্যালাইন পানি দিয়ে ধুতে হবে। খুব সাবধানতার সঙ্গে এ কাজ করতে হবে নতুবা পরিচর্যাকারীরও এ রোগে আক্রান্ত হতে পারে।

উপরে