আপডেট : ২৮ মার্চ, ২০১৬ ২১:২৯

ডায়াবেটিসে আর নয় ইনসুলিন, আসছে খাওয়ার ওষুধ

বিডিটাইমস ডেস্ক
ডায়াবেটিসে আর নয় ইনসুলিন, আসছে খাওয়ার ওষুধ

ডায়াবেটিসের প্রকোপ বেড়েই চলছে বিশ্বব্যাপি। দীর্ঘমেয়াদী এ রোগ একবার হলে আমৃত্যু বয়ে বেড়াতে হয়। ডায়াবেটিসের চিকিৎসা শুরু হয় জীবনযাত্রার শৃঙ্খলা বৃদ্ধি থেকে আর বিভিন্ন ধাপে ধাপে তা চলতে থাকে রোগী যতদিন বেঁচে থাকে ততদিন।

ডায়াবেটিসের চিকিৎসা করতে গিয়ে রোগীদের জীবনযাপনের যেমন পরিবর্তন হয় তেমনি জীবন ধারণের খরচও বেড়ে যায়। যাদের ডায়াবেটিসের সাথে অন্য সমস্যা যেমন- হৃদরোগ, স্ট্রোক, কিডনি সমস্যা, স্নায়ু সমস্যা, প্রজনন সমস্যা ইত্যাদির কোন একটি থাকে সেক্ষেত্রে লাফিয়ে লাফিয়ে চিকিৎসা ব্যয় বাড়তে থাকে। কিন্তু রোগীরা শুধু চিকিৎসা ব্যয় নয়, চিকিৎসা পদ্ধতি নিয়েও অনেক সময় অসন্তুষ্টিতে ভুগতে থাকেন।

এ সকল সমস্যা সমাধানের জন্য ডায়াবেটিসের চিকিৎসা নিয়ে ক্রমাগত গবেষণা হচ্ছে। যার ফলস্বরূপ বিভিন্ন রকম ইনস্যুলিন এখন বাজারে পাওয়া যাচ্ছে। তেমনি মুখে খাবার ওষুধেরও বিভিন্ন শ্রেণী ও ধরনের আবিষ্কার হয়েছে। এ ধারাবাহিকতায় নতুনতম সংযোজন হলো- সোডিয়াম, গ্লুকোজ, কো-ট্রান্সফোর্ট ইনহিবিটর-২ ধরনের ওষুধসমূহ।

পৃথিবীর অন্যান্য দেশে বেশ কিছুদিন ধরেই এ ওষুধগুলো পাওয়া গেলেও বাংলাদেশে এই প্রথম এ শ্রেণীর একটি ওষুধ বাজারজাত হয়েছে। এ শ্রেণীভুক্ত ওষুধসমূহের মধ্যে আছে- ডাপাগ্লিফ্লোজিন, কানাগ্লিফ্লোজেন, এম্পাগ্লিফ্লোজিন। বাংলাদেশে শুধুমাত্র ডাপাগ্লিফ্লোজিন পাওয়া যাচ্ছে। এ শ্রেণীভুক্ত ওষুধগুলো বিশ্বব্যাপী ডায়াবেটিসের চিকিৎসকদের ব্যাপকভাবে আকৃষ্ট করেছে।

এর বেশকিছু চমকপ্রদ বৈশিষ্ট্য আছে। যেমন-

•এটি অগ্নাশয়ের ইনস্যুলিন উৎপাদন ক্ষমতার সাথে মোটেও সংশ্লিষ্ট নয়।

•এটি কিডনি টিউবিউল হতে যে পরিমাণ গ্লুকোজ আবার রক্তে ফিরে আসার কথা সেটিকে ফিরতে না দিয়ে বরং মূত্রের সাথে বের করে দিচ্ছে। এতে ইনস্যুলিন প্রয়োজন হচ্ছে না তো বটেই উপরন্তু দৈহিক ওজন কমার সুযোগ সৃষ্টি হচ্ছে।

•আবার প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে ডায়াবেটিসের সকল ওষুধ ব্যবহার করা যাচ্ছে।

•ওষুধটি আবার হৃদরোগ বা অন্যান্য ক্ষেত্রেও ধনাত্মক প্রভাব ফেলে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

•এর রক্তের গ্লুকোজ কমাবার সামর্থ্যও বেশ ভালো।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আরকে

উপরে