আপডেট : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৬:৪০

সাবধান! খাবারের পর ঠান্ডা পানি পান করছেন তো মরছেন

বিডিটাইমস ডেস্ক
সাবধান! খাবারের পর ঠান্ডা পানি পান করছেন তো মরছেন

আপনি যদি সত্যিকারের বন্ধু বৎসল হয়ে থাকেন; তবে আপনার বন্ধুদেরকে সতর্ক করুন। এখনই! তাদের জানিয়ে দিন, যারা খাবাবেরর পর ঠান্ডা পানি খেতে ভালোবাসেন- তাদের জন্য অপেক্ষা করছে ভয়ঙ্কর বিপদ!

আর আপনিও যদি এমনটা করেন তবে এ লেখাটি আপনার জন্যও।

খাওয়ার পর এক গ্লাস ঠান্ডা পানি অনেকের কাছেই দারুণ লাগে। যদিও এই ঠান্ডা পানিটুকু পেটে পৌঁছেই খাবারের সঙ্গে গ্রহন করা তৈলাক্ত উপাদান গুলোকে জমাটবদ্ধ করে ফেলে। এতে আপনার হজমক্রিয়ার গতি ধীর হয়ে যায়।

কিন্তু সবচেয়ে ভয়ঙ্কর কথা হলো- ‘তৈলাক্ত কাদাটুকু’ এসিডের সঙ্গে বিকৃয়া করে ভেঙে গিয়ে আপনার খাদ্য উপাদানের আগেই শোষিত হয়ে যায়। আর এরপরই এটা অন্ত্র অভিমুখে যাত্রা করে। শুধু তাই নয়, তৈলাক্ত উপাদান খুব শিঘ্রই নেতৃত্ব দেবে সেই দিকগুলোকে যারা ক্যান্সারের জন্য দায়ি। একদল বিশেষজ্ঞ বলছেন, এ প্রকৃয়ায় ৫০ ভাগেরও বেশি মানুষের ক্যান্সার হয়ে থাকে!

তাই, গরম সোপ কিংবা উষ্ম জলই খাদ্য গ্রহনের পর আদর্শ পানিও।

আরও একটি ‘সতর্কতা’। এটি হার্ট এট্যাক নিয়ে!

আপনি হয়তো জানেন যে, বেশির ভাগ হার্ট এ্যাটাক’র সূচণা হয় বাম বাহুতে প্রচন্ড ব্যাথার মাধ্যমে। তবে খেয়াল রাখবেন, এক্ষেত্রে আপনার চোয়াল বরাবরেও এমন ব্যাথা হতে পারে। হার্ট এ্যাটাক করলে আপনার বুকে ব্যাথা নাও হতে পারে। যদিও বমি বমি ভাব হতে পারে এবং তাৎক্ষনিকভাবে শরীর ঘেমে যেতে পারে।

ঘুমের মধ্যে হার্ট এ্যাটাক করলে ৬০ শতাংশ মানুষেরই আর কখনোই ঘুম ভাঙেনা। তবে, চোয়ালের তীব্র ব্যাথা আপনাকে গভীর ঘুম থেকেও জাগিয়ে দিতে পারে। আসুন আমরা সতর্ক ও সাবধান হই। আপনি যত বেশী সচেতন থাকবেন, তত বেশি টিকে থাকতে পারবেন।

তবে চলুন, এ ব্যাপারগুলো সম্পর্কে একে-অপরকে সচেতন করে তুলি। রোগ মুক্ত স্বাভাবিক জীবনের এক পৃথিবী গড়ি।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/মাঝি

উপরে