আপডেট : ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৮:২৩

হোমিওপ্যাথি অন্ত:সার শূন্য! বলছে গবেষণা

হোমিওপ্যাথি অন্ত:সার শূন্য! বলছে গবেষণা

হোমিওপ্যাথি মনকে শান্তনা দেয়ার ঔষধ ছাড়া আর কিছু নয়। নামকরা এক গবেষক সম্প্রতি এমন তথ্যই দিয়েছেন।

হোমিওপ্যাথির কার্যকারীতা পরখ করতে ‘ন্যাশনাল হেলথ এন্ড মেডিক্যাল রিসার্চ কাউন্সিল’-এর পরিচালিত এক জরিপ কমিটির প্রধান ছিলেন অস্ট্রেলিয়ার বন্ড ইউনিভার্সিটির গবেষক প্রফেসর পল গ্লাসজিউ। জরিপ কাজে তারা ১৭৬টি পরীক্ষা সম্পন্ন করেন।

অবিশ্বাস্য হলেও সত্য যে, ৬৮ জন রোগীর ক্ষেত্রে ৫৭টি উপায়ে ওই ১৭৬ পরীক্ষার ফলাফল ছিলো শূন্য!

হোমিওপ্যাথি হচ্ছে এক বিকল্প জল মিশ্রিত ঔষধ।

গবেষণার পর্যবেক্ষণ হলো এই যে, ‘প্রাচীন এই পদ্মতিটি মানসিক প্রশান্তিদায়ক ঔষধের বেশি কিছু নয়।’ গবেষণা পত্রটি তাদের উপসংহারে বলে, ‘রুগ্ন মানুষের ওপর এ পদ্মতি এমন কোন ফলদায়ক প্রভাব রাখতে পারেনি যার কারণে এমন ব্যাবস্থায় বিশ্বাস রাখা যায়।’

একটি ব্রিটিশ স্বাস্থ্য সাময়ীকীর একটি ব্লগে দেয়া জবানিতে গ্লাসজিউ বলেন, ‘গবেষক দলের প্রধান হিসেবে আমার প্রথম দিক’কার আচরণটা ছিলো এমন যে- আমি কিছুই জানিনা, জানতে আগ্রহী হোমিওপ্যাথি কিভাবে এবং কতটুকু সফলতার সঙ্গে রোগীর শরীরে কাজ করে। কিন্তু মাত্র ৫৭টি উপায়ে ১৭৬টি পরীক্ষা করার পর আমরা আমাদের উৎসাহ একেবারেই হারিয়েছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি ভালোই বুঝতে পারছি কেন হোমিওপ্যাথির জনক হ্যানিম্যান ১৮শতকে রক্তক্ষরণ এবং শুদ্ধিকরণের ক্ষেত্রে রাষ্ট্রিয় চিকিৎসা ব্যাবস্থায় অসন্তুষ্ট ছিলেন।’

সূত্র: ইনডিপেন্ডেন্ট

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/মাঝি

উপরে