আপডেট : ৩০ জানুয়ারী, ২০১৬ ২১:৩৩

ঘরোয়া উপায়ে পা ফাটার সমস্যা থেকে মুক্তি

বিডিটাইমস ডেস্ক
ঘরোয়া উপায়ে পা ফাটার সমস্যা থেকে মুক্তি

রুক্ষ, শুষ্ক শীতের আবহাওয়া ভীষণভাবে প্রভাব ফেলে আমাদের ত্বকে। শীত এলেই ত্বকের রুক্ষতা বেড়ে যায়, যার কারণে আমাদের ত্বকে নানা ধরনের সমস্যা দেখা দেয়। নির্জীব ত্বকের পাশাপাশি সবচেয়ে বেশি চিন্তায় ফেলে পায়ের ফাটা গোড়ালি। এ সমস্যায় যারা ভুগে থাকেন, তারা জেনে নিন কিছু সতর্কতা। কারণ আমাদের নিজেদের অবহেলার জন্যই শীতের এ সময় শুরু হয় পা ফাটার সমস্যা। চিন্তা করবেন না। ঘরোয়া উপায় মিলবে পা ফাটার সমস্যা থেকে মুক্তি।

কী সেই উপায়?

• রাতে ঘুমানোর আগে ভালোভাবে পা ধুয়ে পরিষ্কার করে নিতে হবে। এরপর পা মুছে ভালোভাবে কোনো তেল মালিশ করে নিতে হবে। বিশেষভাবে পায়ের ফাটা অংশে। এরপর একটি মোটা মোজা পরে ঘুমাতে হবে। এতে সারা রাত ত্বক তেল শুষে নেবে এবং ত্বক নরম থাকবে।

• বাইরে থেকে বাড়িতে আসার পরই হালকা গরম জলে অল্প নারকেল তেল, সামান্য নুন দিয়ে পা ডুবিয়ে রাখুন। আলতো করে পিউমিস স্টোন দিয়ে ভাল করে পা পরিষ্কার করুন। এর পর শুকনো তোয়ালে দিয়ে পা মুছে নিন।

• পায়ের ফাটা অংশে জমা ময়লা পরিষ্কার করতে চাইলে দু’-তিন চামচ চালেরগুড়ি, মধু ও ভিনিগার মিশিয়ে একটি মিশ্রণ বানিয়ে নিন। গোড়ালির ফাটা অংশের উপর মিশ্রণটি লাগিয়ে দিন। কিছু ক্ষণ রাখার পর ভিজে হাত দিয়ে মিশ্রণটি ঘষে ঘষে তুলে ফেলুন। ময়লা উঠে যাবে।

• পায়ের ফাটা অংশে মেহেন্দি পাতা, পালং শাক বাটা ও গ্লিসারিন মিশিয়ে লাগান। মিনিট দশেক রাখার পর ধুয়ে ফেলুন।

• গরম পানিতে লেবুর রস মিশিয়ে পা ২০ মিনিট ভিজিয়ে রাখুন। এরপর একটি লোফা নিয়ে হালকাভাবে পা ঘষে নিতে হবে। এতে পায়ের মৃত কোষগুলো উঠে যাবে।

• পেট্রোলিয়াম জেলির সঙ্গে ১ চা-চামচ লেবুর রস মিশিয়ে পায়ের ফাটা অংশে মালিশ করতে হবে যতক্ষণ না পর্যন্ত ত্বক পুরোপুরি মিশ্রণটি শুষে নিচ্ছে। এরপর মোটা মোজা পরে সারা রাত রাখতে হবে।

• গ্লিসারিন এবং গোলাপ জল মিশিয়ে পায়ে মালিশ করলেও পা ফাটা সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে।

শুধু শীতের আবহাওয়ার জন্য নয়, শরীরে ভিটামিন, মিনারেল, জিঙ্ক, ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড ইত্যাদি পুষ্টির অভাবের কারণেও পা ফাটতে পারে। তাই খেয়াল রাখতে হবে যেন নিয়মিত খাবারের তালিকায় পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন, খনিজ উপাদান, ভিটামিন ই থাকে।

তাই ভেজিটেবল অয়েল, সবুজ শাকসবজি, অপরিশোধিত আটার রুটি এবং সিরিয়াল, ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার- দুধ, পনির, দই, মাংস, মাছ ইত্যাদি খাবার খেতে হবে। তাহলে শুধু পা নয়, শরীরের ত্বক এবং চুল পুষ্টি পাবে।

তাছাড়া নিয়মিত পা পরিষ্কার রাখতে হবে এবং পায়ের মৃত কোষ দূর করতে স্ক্রাবিং এবং এক্সফলিয়েট করতে হবে। পা পরিষ্কারের পর অবশ্যই ভালোভাবে ময়েশ্চারাইজ করতে হবে। তাছাড়া পা খোলা রাখা বা খালি পায়ে হাঁটা এড়িয়ে চলতে হবে। সপ্তাহে একদিন অন্তত গরম পানিতে পা ভিজিয়ে রাখতে হবে। এতে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি পাবে

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/এসএম

উপরে