আপডেট : ১১ জুলাই, ২০১৯ ১২:৫৭

বিনামুল্যে খাবার খাওয়াচ্ছে মেসির হোটেল

অনলাইন ডেস্ক
বিনামুল্যে খাবার খাওয়াচ্ছে মেসির হোটেল

ফুটবল মহাতারকা লিওনেল মেসি এক হোটেল দিয়েছেন। এখানে অসহায়, ঘরহীন দুস্থরা বিনামূল্যে খেতে পারবে। জেনে নিন মেসির এই হোটলে সম্পর্কে।

আরও একটি কোপা আমেরিকা টুর্নামেন্ট দুঃস্বপ্নের মতো কাটল লিওনেল মেসির। এবারও সেই ব্যর্থতা। জুটল প্রবল সমালোচনা। ব্রাজিলের কাছে হেরে কোপার সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নিয়েছিল আর্জেন্টিনা। কাপ জিতেছে ব্রাজিল। তারপর থেকে একটানা সমালোচনা হজম করতে হচ্ছে মেসিকে।

 আরও একটি কোপা আমেরিকা টুর্নামেন্ট দুঃস্বপ্নের মতো কাটল লিওনেল মেসির। এবারও সেই ব্যর্থতা। জুটল প্রবল সমালোচনা। ব্রাজিলের কাছে হেরে কোপার সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নিয়েছিল আর্জেন্টিনা। কাপ জিতেছে ব্রাজিল। তারপর থেকে একটানা সমালোচনা হজম করতে হচ্ছে মেসিকে।

যদিও এত সমালোচনার মাঝেও মেসির ভালো দিক তাকে হাজার তারকার মাঝেও উজ্জ্বল করে তুলছে। আর্জেন্টিনায় বেশ কিছুদিন ধরে চলছে শৈত্যপ্রবাহ। সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে দারিদ্র। দক্ষিণ আমেরিকার এই দেশে অতিদরিদ্র মানুষের সংখ্যা ঠেকেছে ২ লাখে। প্রচুর মানুষ দারিদ্রের জন্য খোলা আকাশের নিচে আশ্রয় নিতে বাধ্য হয়েছে। এবার সেই হতদরিদ্র মানুষদের পাশে দাঁড়ালেন মেসি।

যদিও এত সমালোচনার মাঝেও মেসির ভালো দিক তাকে হাজার তারকার মাঝেও উজ্জ্বল করে তুলছে। আর্জেন্টিনায় বেশ কিছুদিন ধরে চলছে শৈত্যপ্রবাহ। সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে দারিদ্র। দক্ষিণ আমেরিকার এই দেশে অতিদরিদ্র মানুষের সংখ্যা ঠেকেছে ২ লাখে। প্রচুর মানুষ দারিদ্রের জন্য খোলা আকাশের নিচে আশ্রয় নিতে বাধ্য হয়েছে। এবার সেই হতদরিদ্র মানুষদের পাশে দাঁড়ালেন মেসি।

মেসির জন্মস্থান রোজারিওতে একটি হোটেল চালায় তার পরিবার। গত শুক্রবার থেকে সেখানে ঘরছাড়া, দুঃস্থ মানুষদের বিনামূল্যে খাবার বিতরণ করা হচ্ছে। মেসির সেই হোটেলের নাম ভিআইপি।

মেসির জন্মস্থান রোজারিওতে একটি হোটেল চালায় তার পরিবার। গত শুক্রবার থেকে সেখানে ঘরছাড়া, দুঃস্থ মানুষদের বিনামূল্যে খাবার বিতরণ করা হচ্ছে। মেসির সেই হোটেলের নাম ভিআইপি।

জনপ্রিয় স্প্যানিশ পত্রিকা মার্কা-র খবর অনুযায়ী, ১৫ দিন এভাবেই ঘরছাড়া মানুষদের মুখে খাবার তুলে দেবে মেসির হোটলে। ভিআইপি-র ম্যানেজার অ্যারিয়েল আলমাদার বলেছেন, ‘খাবারের পাশাপাশি আমরা কফি, সফট ড্রিংকস ও কখনও কখনও হালকা ওয়াইনেরও ব্যবস্থা করেছি। টানা ১৫ দিন আমরা এই কর্মসূচি চালাব। সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত ক্ষুধার্ত মানুষদের জন্য রেস্টুরেন্টের দরজা খোলা থাকবে।’

জনপ্রিয় স্প্যানিশ পত্রিকা মার্কা-র খবর অনুযায়ী, ১৫ দিন এভাবেই ঘরছাড়া মানুষদের মুখে খাবার তুলে দেবে মেসির হোটলে। ভিআইপি-র ম্যানেজার অ্যারিয়েল আলমাদার বলেছেন, ‘খাবারের পাশাপাশি আমরা কফি, সফট ড্রিংকস ও কখনও কখনও হালকা ওয়াইনেরও ব্যবস্থা করেছি। টানা ১৫ দিন আমরা এই কর্মসূচি চালাব। সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত ক্ষুধার্ত মানুষদের জন্য রেস্টুরেন্টের দরজা খোলা থাকবে।’

 খিদে ও শৈত্যপ্রবাহের জেরে ইতিমধ্যে আর্জেন্টিনায় পাঁচজনের মৃত্যুর খবর রয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে দেশের মানুষের জন্য মেসির এই উদ্যোগ সত্যিই প্রশংসনীয়। ফুটবলার মেসির থেকে মানুষ মেসির গুণগান করছেন আর্জেন্টিনার মানুষ।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/রাসেল

উপরে