আপডেট : ১৬ নভেম্বর, ২০১৮ ১৫:২৭

বিজয়ের হাসিতেই শেষ রুনির ইংল্যান্ড অধ্যায়

অনলাইন ডেস্ক
বিজয়ের হাসিতেই শেষ রুনির ইংল্যান্ড অধ্যায়

অবসর নিয়েছিলেন আগেই, তবু তাকে খেলার মাঠ থেকে বিদায় জানাতেই প্রীতি ম্যাচে আয়োজন করেছিল ইংল্যান্ড ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন। ২০১৬ সালের নভেম্বরের পরে প্রথম ও শেষবারের মতো জাতীয় দলের হয়ে মাঠে নামলেন ওয়েইন রুনি।

তাতে জয় দিয়েই বিদায় জানালেন আন্তর্জাতিক ফুটবলকে। যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে ইংল্যান্ডের ঐতিহ্যবাহী স্টেডিয়াম ওয়েম্বলিতে রুনির বিদায়ী ম্যাচে ৩-০ গোলে জিতেছে স্বাগতিকরা। ম্যাচে রুনি গোল না পেলেও সতীর্থদের নৈপুণ্যে শেষ ম্যাচে বিজয়ীর হাসি হাসতে পেরেছেন রুনি।

ম্যাচে ইংল্যান্ডের হয়ে গোল তিনটি করেন জেসে লিনগার্ড (২৫তম মিনিটে), ট্রেন্ট আলেক্সান্ডার-আরনল্ড (২৭তম মিনিটে) ও ক্যালাম উইলসন (৭৭তম মিনিটে)। লিনগার্ডের বদলি খেলোয়াড় হিসেবে ৫৮ মিনিটে মাঠে নেমেছিলেন রুনি।

২০০৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে জাতীয় দলের হয়ে অভিষেক হয় রুনির। ২০১৫ সালে ববি চার্লটনকে (৪৯ গোল) পেছনে ফেলে ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ গোলদাতা হন এই ফরোয়ার্ড। এখন পর্যন্ত জাতীয় দলে তার গোলের সংখ্যা ৫৩।

২০১৭ সালে জাতীয় দলকে বিদায় বলে দিলেও চলতি নভেম্বরের শুরুর দিকে ইংল্যান্ডের হয়ে শেষ ম্যাচ খেলার ব্যাপারে সম্মত হন রুনি। মূলত নিজের নামে প্রতিষ্ঠিত চ্যারিটি ফাউন্ডেশনের জন্য তিনি খেলতে রাজি হওয়ায় প্রীতি ম্যাচটির নাম হয়েছিল ‘দ্যা ওয়েইন রুনি ফাউন্ডেশন ইন্টারন্যাশনাল’।

উপরে