আপডেট : ১৯ আগস্ট, ২০১৭ ১৭:১৯

এসেনসিওর দামও ৫০০ মিলিয়ন ইউরো!

অনলাইন ডেস্ক
এসেনসিওর দামও ৫০০ মিলিয়ন ইউরো!

বিশ্বসেরা ফুটবলারদের দলে ভেড়াতে এমনিতেই বিশেষ সুনাম ফ্লোরেন্তিনো পেরেজের। নেইমারকে রিলিজ ফি’র পুরো ২২২ মিলিয়ন ইউরোতে কিনে পিএসজি রিয়াল মাদ্রিদ সভাপতির চোখটা আরও ভালো করে খুলে দিয়েছে। নেইমার-কাণ্ডের পর পেরেজের পুরো মনোযোগ এখন নিজ দলের তারকা খেলোয়াড়দের ধরে রাখার শিকল শক্ত করার দিকে।

কোনো ক্লাব যাতে রিয়ালের খেলোয়াড়দের দিকে হাত বাড়ানোর সাহস না পায়, সে জন্য রিয়াল খেলোয়াড়দের রিলিজ ক্লজ বাড়িয়ে আকাশচুম্বি করে নিচ্ছে। কদিন আগে মিডফিল্ডার ইসকোর রিলিজ ক্লজ বাড়িয়ে ৭০০ মিলিয়ন ইউরো করেছে রিয়াল! সেই ধারাবাহিকতায় স্প্যানিশ জায়ান্টরা এবার মার্কো এসেনসিও’র রিলিজ ক্লজ করতে যাচ্ছে ৫০০ মিলিয়ন ইউরো!

২০১৪ সালে মালাগা থেকে এসেনসিওকে মাত্র ৩.৯ মিলিয়ন ইউরোতে কিনে আনে রিয়াল। গত মৌসুমে সেই এসেনসিও’র উপর ৩৫০ মিলিয়ন ইউরোর রিলিজ ক্লজ ঝুলিয়ে ফেলে রিয়াল। এবার অঙ্কটা বাড়িযে করতে যাচ্ছে ৫০০ মিলিয়ন ইউরো! হিসাব খুব সোজা। রিয়াল তাকে ছাড়বে না। তারপরও যদি কোনো ক্লাব তাকে কিনতে চায়, ৫০০ মিলিয়ন ইউরো দিয়েই কিনতে হবে। অঙ্কটা বাড়াবাড়ি রকমেরই বটে; তবে এসেনসিও’র পারফরম্যান্সের উন্নতিটাও বিস্ময়ে চোখ কপালে তোলার মতোই।

অবিশ্বাস্য পারফরম্যান্স দিয়ে গত মৌসুমেই বিশ্ববাসীর মন জয় করে নিয়েছেন ২১ বছর বয়সী তরুণ। স্বাভাবিকভাবেই রিয়ালের স্প্যানিশ তরুণ ফরোয়ার্ডের উপর ইউরোপের অনেক ক্লাবেরই নজর পড়ে। রিয়ালের তরুণ তুর্কি নতুন মৌসুমটা শুরু করেছেন আরও অবিশ্বাস্যভাবে। বার্সেলোনার বিপক্ষে মৌসুমসূচক স্প্যানিশ সুপার কাপের দুই লেগেই দুই ‘সুপার’ গোল করেছেন এসেনসিও। ফুটবলবোদ্ধারা এখনই তার মধ্যে দেখছে পাচ্ছেন আগামীর মহাতারকার প্রতিচ্ছবি। রিয়াল কিছুতেই বিস্ময়কর এই প্রতিভা হারাতে চায় না।

তাই বাই-আউট ক্লজটা বাড়িয়ে আকাশচুম্বি করে নিচ্ছে। যাতে কোনো ক্লাব তাকে কেনার সাহস না করে! এসেনসিও’র সঙ্গে রিয়ালের চুক্তিটা ২০১২২ সাল পর্যন্ত। ততদিনে এসেনসিওর রিলিজ ক্লজের অঙ্কটা রিয়াল কোথায় নিয়ে ঠেকাবে, কে জানে!

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

উপরে