আপডেট : ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৭:০৯

সংবাদমাধ্যমগুলো আমাকে মেরে ফেলতে চেয়েছিল: ব্ল্যাটার

স্পোর্টস ডেস্ক
সংবাদমাধ্যমগুলো আমাকে মেরে ফেলতে চেয়েছিল: ব্ল্যাটার

অবৈধ লেনদেনের অভিযোগে নিষিদ্ধ হয়েছেন বিশ্ব ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফার সাবেক প্রেসিডেন্ট সেপ ব্ল্যাটার। তবে তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ বরাবরই অস্বীকার করে আসছেন তিনি। 

ব্ল্যাটারের দাবি ২০২২ সালের বিশ্বকাপ আয়োজনের সুযোগ যদি আমেরিকাকে দেওয়া হতো তাহলে এখন তার এই অবস্থা হতো না। আমেরিকাকে আয়োজক না করে কাতারকে আয়োজক করায় তার এই পরিণতি!

একটি টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে ব্ল্যাটার বলেন, ‘সংবাদমাধ্যমগুলো আমাকে মেরে ফেলতে চেয়েছিল। আমেরিকাকে যদি ২০২২ সালের বিশ্বকাপ আয়োজনের সুযোগ করে দেওয়া হতো, তাহলে আজ আমাকে এরকম বাজে অবস্থায় পড়তে হতো না।’

ব্ল্যাটার আরও যোগ করেন, আর্থিক লেনদেনের কারণে বিশ্বকাপ আয়োজন করা হয় না। সেখানে রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ থাকে। ইউরোপ প্রথমে পরোক্ষ সমঝোতার মাধ্যমে জানায়, বিশ্বকাপের আয়োজন করবে আমেরিকা। তবে, ফ্রান্সের রাজনৈতিক হস্তক্ষেপে এ সিদ্ধান্ত বদলে যায়। ২০২২ বিশ্বকাপটা যদি আমেরিকাকে দেওয়া হতো তাহলে আজ আমার এ অবস্থা হতো না।

তিনি বলেন, আমার বিরুদ্ধে যখন আর্থিক কেলেঙ্কারির অভিযোগ উঠে, তখন আমি বেশ একা হয়ে যাই। আর সে সুযোগকে কাজে লাগিয়ে সংবাদমাধ্যমগুলো আমাকে চেপে ধরে। আমার খুব কষ্ট হয়েছে, যখন দেখেছি প্রথম থেকেই সংবাদমাধ্যমগুলো আমার বিরোধিতা করে। এটা খুবই দুঃখজনক। মনে হচ্ছিলো তারা আমাকে মেরেই ফেলতে চাচ্ছে। একমাত্র গ্রেট ফুটবলার মিশেল প্লাতিনি আমাকে সমর্থন করতে পেরেছিল। তবে, তাকেও পরে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। উল্লেখ্য, মিশেল প্লাতিনি উয়েফার প্রেসিডেন্ট পদে ছিলেন। আর ব্ল্যাটারের সঙ্গে আর্থিক অনিয়মে জড়িত থাকার দায়ে তাকেও নিষিদ্ধ করা হয়।

 

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আইএম

 

উপরে