আপডেট : ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৮:১১

জটিলতায় নেইমার!

বিডিটাইমস ডেস্ক
জটিলতায় নেইমার!

বিতর্ক, মামলা—ঝামেলার অবসান ঘটছে না নেইমারের। মাত্র পরশুই প্রতারণার মামলায় স্পেনের আদালতে শুনানি হলো ব্রাজিলিয়ান তারকার। এখনো ঐ মামলার জটিলতা শেষ দেখা যাচ্ছে না, তার আগে নতুন আরেকটি কর ফাঁকি ও মিথ্যা তথ্য দেওয়ার মামলা হয়েছে বার্সা ফরোয়ার্ডের বিপক্ষে।
সান্তোস থেকে বার্সেলোনায় নেওয়ার সময় আসল অঙ্কটা গোপন করে ঠকানো হয়েছে, এই অভিযোগে স্পেনের আদালতে মামলা করেছিল ডিআইএস নামে একটি বিনিয়োগ প্রতিষ্ঠান। সেই মামলার শুনানিতেই গত সোমবার বার্সা সভাপতি হোসে বার্তোমেউকে ডেকে পাঠানো হয়েছিল। এর আগেও তার কাছ থেকে এ বিষয়ে বক্তব্য নেওয়া হয়েছিল। তাই শুনানিতে নতুন করে আত্মপক্ষ সমর্থন করার প্রয়োজন দেখেননি বার্সা সভাপতি। বার্তোমেউর পর পরশু নেইমার ও নেইমারের বাবাকেও যেতে হয় আদালতে।

দেড় ঘণ্টার শুনানিতে এ ব্যাপারে কিছু বলতে রাজি হননি নেইমার। তবে ব্রাজিলিয়ান তারকার সাবেক ক্লাব ঠিকই নিজেদের ক্ষোভ জানিয়েছে। আদালতে সাক্ষ্য দিতে আসা সান্তোস প্রতিনিধি ফাতিমা ক্রিস্টিনা বোনাস্সা তো নেইমারকে প্রতারকই বলেছেন। তার মতে, ২০১৩ সালে দলবদলের সময় নেইমার প্রাপ্তবয়স্ক ছিল। সে জানত যে, চুক্তি সই করছে, সেখানে কী আছে, কী পরিমাণ অর্থ লেনদেন হচ্ছে।

সান্তোসের দাবি, তারা জানত নেইমারের দলবদলে ৫৭.১ মিলিয়ন ইউরো খরচ হয়েছিল, যার ১৭.১ মিলিয়ন ইউরো ক্লাবটির প্রাপ্তি। কিন্তু পরে যে অঙ্কটা প্রকাশ পেয়েছে তা ৮৩.৩ মিলিয়নের কাছাকাছি। অর্থাৎ বাকি ২৬ মিলিয়ন ইউরো লুকিয়ে রেখে নেইমার তাঁর শৈশবের ক্লাবটির সঙ্গে প্রতারণা করেছেন!

এদিকে এই শুনানি চলা অবস্থাতেই ব্রাজিলে নেইমারের বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলা হয়েছে। ব্রাজিলিয়ান এক কৌঁসুলি থিয়াগো লেসের্দা ২০০৬ থেকে ২০১৩ পর্যন্ত নেইমার ও তার বাবার করা বিভিন্ন আর্থিক লেনদেন নিয়ে প্রশ্ন তুলে এই মামলা দায়ের করেছেন। তার অভিযোগে বলা হয়েছে, এই সময়ে নেইমারের ইমেজ স্বত্ব থেকে প্রাপ্ত অর্থ নিয়ে দুর্নীতি করা হয়েছে। এই উদ্দেশ্যে নাকি ব্যবহার করা হয় নেইমারের বাবার তিনটি প্রতিষ্ঠানকে। তবে নেইমার নিজেকে এখনো নির্দোষ দাবি করে লেসের্দার এ অভিযোগকে প্রচারের আলোয় আসার অপচেষ্টা বলে উড়িয়ে দিয়েছেন।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটম/এনএ

উপরে