আপডেট : ২০ জুলাই, ২০১৮ ০৯:০০

বয়স ৪০ মানেই সাবধান!

অনলাইন ডেস্ক
বয়স ৪০ মানেই সাবধান!

একটা করে দিন যায় আর বয়স একধাপ করে এগোতে থাকে। এই বয়সের সঙ্গে সঙ্গেই শরীরে বিভিন্ন পরিবর্তন আর রোগবালাই দেখা দিতে থাকে। তাই রোগে আক্রান্ত হওয়ার আগেই যদি কিছুটা সতর্ক আগে থেকেই হওয়া যায়, তাহলে সেটা অবশ্যই ভালো। বিশেষ করে বয়স ৪০ বছরকে মাথায় রেখে এই কাজগুলো বিষয়ে আপনাকে সচেতন হতে হবে:

হাঁটতে হবে নিয়ম করে

সব বয়সেই সব ধরনের মানুষেরই মোটামুটি বিভিন্ন ব্যস্ততা থাকে। জীবন ধারণের তাগিদে নিজের শরীর আর মনের যত্ন নেওয়ার সময়ই হয়না। কিন্তু বয়স ৪০ পার হলেই শরীরের দিকে একটু বিশেষ যত্নশীল হতে হয়। এজন্য দিনে কমপক্ষে ৪৫ মিনিট হাঁটতে হবে। এতে মেটাবলিজম বেড়ে ফলে শরীরে অতিরিক্ত মেদ জমবে না।

পরিবারের রোগবালাইয়ের ইতিহাস জানুন

শুধু নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষা করলেই হবে না। আপনার বয়স বাড়তে থাকলে পরিবারে কারো বড় কোনো রোগ আছে কি না তা জেনে নিন। এই যেমন ডায়বেটিস, উচ্চরক্তচাপ রোগগুলো বংশগত। এগুলো পরিবারের কারও থাকলে নিজেরও হওয়ার আশঙ্কা থাকে। তাই এই রোগগুলো রুখতে আগে থেকেই সচেতন হয়ে আগাম ব্যবস্থা নিন।

স্বাস্থ্য পরীক্ষা করুন ‍নিয়মিত

বয়স একটু বেশি হতে থাকলে নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষার কোনো বিকল্প নেই। চল্লিশের পর নিয়মিত হেলথ চেকআপ করানোটা জরুরি। এজন্য একটি রুটিন করে নিন। মেডিক্যাল চেকআপ অনুযায়ী চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে জীবনধারাতে পরিবর্তন আনুন। এতে রোগের ঝুঁকি কমবে।

কিছু অভ্যাস থেকে বেরিয়ে আসুন

যৌবন বয়সে কিছু অভ্যাস প্রায় সবারই থাকে। এই যেমন বন্ধুবান্ধবের সঙ্গে নিয়মিত পার্টি করা, ঘুরতে যাওয়া, দলবেধে কোথাও খাওয়া, কোনো নেশাদ্রব্যে আসক্তি। বয়স ৪০ এর আশেপাশে চলে গেলে এগুলো থেকে বেরিয়ে আসুন। নিয়মিত স্বাস্থ্যকর খাদ্যাভাস করুন। নেশাদ্রব্যের আসক্তি বাদ দিন। শৃঙ্খলাবদ্ধ জীবন কাটান।  

খাদ্যাভাস বদলান

অল্প বয়সে কোনো রোগের তেমন কোনো প্রকোপ থাকেনা বলে খাদ্যাভাসে কোনো নিষেধাজ্ঞা থাকে না বলা যায়। বাইরের খাবার, তেল মশলাযুক্ত বা ক্যালরিযুক্ত খাবার খাওয়াই যায়। কিন্তু বয়সের সঙ্গে আসে বিভিন্ন রোগ। এসময় ঘরে তৈরি স্বাস্থ্যকর খাবার, তাজা ফলমূল, শাকসবজি, মাছ খাবেন। খেয়াল রাখবেন শক্তিবর্ধক খাবার খেতে।

পর্যাপ্ত ঘুমের প্রতি নজর দিন

কম বয়সে ঘুম একটু কম হলেও শরীর তা মানিয়ে নিতে পারে। কিন্তু বয়স বাড়তে থাকলে শরীরের কর্মক্ষমতা একটু একটু করে কমে। তাই এসময় শরীরকে সুস্থ রাখতে পর্যাপ্ত ঘুমাতে হবে। কম ঘুম হলে শরীর ঠিকমতো চলতে পারে না।

উপরে