আপডেট : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৬:২৯

যৌনতায় বুনো পুরুষদেরই মেয়েরা বেশি পছন্দ করেন!

অনলাইন ডেস্ক
যৌনতায় বুনো পুরুষদেরই মেয়েরা বেশি পছন্দ করেন!

সকাল থেকেই মুডটা বেশ ফ্রেশ। চনমনে। কাল রাতের দুষ্টুমির কথা মনে করে হেসে উঠছেন, লজ্জা পাচ্ছেন নিজের অজান্তেই। কাল রাতটা একটু ইয়ে... মানে বেশিই হয়ে গেছে। পার্টনার আপনাকে ভালো আনন্দ দিয়েছে। 

কেউ এদেরকে বলেন নোংরা। আবার কারো কাছে দুষ্টুমিভরা সত্যটা হলো, 'ব্যাড বয়রা' আর যাই হোক প্রেম নিবেদনের সময় তারাই সেরা। মেয়েরা এই 'খোলামেলা গোপন' কথাটা অনেক সময় মেনে নিতে চান না। কিন্তু এবার বৈজ্ঞানীক গবেষণায় তার প্রমাণ মিলল। নতুন এ গবেষণায় বলা হয়, নারীরা প্রকৃতিগতভাবেই পাগলাটে, দুষ্টু এবং ভয়ংকর টাইপের পুরুষের প্রতি আকৃষ্ট হন।

ইউনিভার্সিটি অব লিভারপুলের এক দল গবেষক ২ হাজার নারীর ওপর গবেষণা পরিচালিত করেন। তাতে দেখা যায়, একজন শক্ত স্বভাবের সঙ্গী খুঁজে পেতেই নারীরা সেই আদিমকাল থেকে এ ধরনের ব্যাড বয়দের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে থাকেন। পুরুষের যে চেহারা নারীদের দারুণভাবে আকৃষ্ট করে সে চেহারায় প্রতারক, আগ্রাসী এমনকি সাইকোপ্যাথির বৈশিষ্ট্য ফুটে ওঠে। এ ধরনের পুরুষের সঙ্গে যৌনতায় আগ্রহী থাকেন নারীরা। কারণ তারা নাকি বিছানায় সেরা। তবে পুরুষের 'ব্যাড বয়' ও বিছানায় পারদর্শী হতে বেশ কয়েকটি বৈশিষ্ট্যের সমন্বয় ঘটতে হয়। যেমন : তারা হন আত্মবিশ্বাসী, উদ্দীপ্ত, আগ্রাসী, প্রতিশ্রুতিশীল এবং সেক্সি দেহের অধিকারী। এদের দেখেই নারীরা বোঝেন যে, এই পুরুষদের সঙ্গে দীর্ঘমেয়াদি সম্পর্ক সম্ভব নয়। কিন্তু তাদের প্রতি রীতিমতো পাগল থাকেন নারীরা। গবেষকরা বলেন, নারীদের এ স্বভাব নৈতিকভাবে ঠিক নয়। এরা কোনো কৌতুকের বিষয় নয়। কিন্তু এটাই বাস্তবতা। যে পুরুষটি এক নারীকে স্রেফ একদিনের জন্যে প্রেম নিবেদন করে দূরে চলে গেলেন, সেই পুরুষটিই হতে পারে ওই নারীর জীবনের সেরা মানুষ। যেকোনো বয়সে নারীদের জন্যে এটা সত্য।

টিনএজার মেয়েদের যখন অভিভাবকরা সাবধান করে বলেন, খারাপ ছেলেদের সঙ্গে মিশবে না। কিন্তু তখনও তারা এ ধরনের ছেলেদের প্রতিই পাগল হয়ে থাকেন। এমনকি এমন পুরুষ যে একের পর এক ডেটিং দিবেন তাও কাম্য নয় নারীদের কাছে। শুধুমাত্র বিছানাতের আগ্রহী নারীরা।

গবেষকরা জানান, নারীরা সেই আদিমকাল থেকেই ব্যাড বয়দের প্রতি আকৃষ্ট এবং এই স্বভাব কখনো বদলাবে না। চরম উত্তেজনাকর প্রেম এবং সেক্সের মধ্যে রয়েছে পাগলাটে এবং এলোমেলো আচরণ যা নারীদের ইন্দ্রজালে আবিষ্ট করে ফেলে। এক অর্থে এটা অনেক ইতিবাচক, গুরুত্বপূর্ণ এবং উত্তেজনাকর। যেহেতু নারীরা তার সেরা সঙ্গীর দেখা পেয়েছেন। এ ক্ষেত্রে নারীরা ওই সঙ্গী কতবার তাদের খোঁজ নিলেন তার হিসেব করেন না। বরং তার সঙ্গে যৌনতা কতটা উপভোগ্য হলো তাতেই আচ্ছন্ন হয়ে থাকেন।

গবেষণায় অংশ নেওয়া নারীরা জানান, সম্পর্ক, বিয়ে এবং এ ক্ষেত্রে সততার বিষয়টি আমাদের মধ্যেও রয়েছে। কিন্তু এ কথাও ঠিক যে শারীরিক চাহিদা অতি গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। আর এ ক্ষেত্রে ব্যাড বয় যেন আকাঙ্ক্ষিত পুরুষ। এ ধরনের পুরুষকে জীবনে বেঁধে নিতে দুই বছরের ব্যর্থ চেষ্টার চাইতে দুই দিনের উত্তেজনাপূর্ণ সেক্স অনেক বেশি উপভোগ্য বলেই মনে করেন নারীরা।

সূত্র : টেলিগ্রাফ 

উপরে