আপডেট : ১৭ আগস্ট, ২০১৭ ১৬:৩৫

জেনে নিন শরতে সুস্থ থাকার উপায়

অনলাইন ডেস্ক
জেনে নিন শরতে সুস্থ থাকার উপায়

শরৎ সবে শুরু হলো। তবে বৃষ্টি তার মায়া এখনও কাটিয়ে উঠতে পারেনি। হুটহাটই চলে আসছে। এদিকে রোদও তার কড়া মেজাজ দেখিয়ে যাচ্ছে যখন তখন। আর এই রোদ-বৃষ্টির খেলায় আমরা হচ্ছি নাজেহাল। এসময়ের তালপাকা গরমে আমাদের প্রাণও যেন আঁইঢাঁই করে। আর তাইতো হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়াটাও অস্বাভাবিক নয়। তাই চলুন জেনে নেই এই সময়ে সুস্থ থাকতে করণীয়।

এ সময় ডাবের পানি বা তাজা ফলের রস উপকারী। রোদ থেকে ফিরে ফ্রিজের ঠান্ডা পানি বা আইসক্রিম খাবেন না। বেশি পানিযুক্ত হাল্কা খাবার খান। প্রচণ্ড রোদে অপ্রয়োজনে ঘর হতে বের হবেন না। লবণ-চিনি-লেবু পানি ঘন ঘন খান। ঠান্ডা নয়, স্বাভাবিক তাপমাত্রার পানি খান। চা বা কফি বেশি খাবেন না। বেশি তেল, বেশি ঝাল ও বেশি মশলার খাবার খাবেন না।

ছাতা ও সানগ্লাস ব্যবহার করুন। এসি রুম থেকে বারবার ঢোকা-বেরোনো ঠিক হবে না। অতিরিক্ত প্রসাধন ব্যবহার করবেন না। গরমে বেশি কেমিক্যালের ব্যবহার করলে ত্বকে প্রভাব পড়বে। চেষ্টা করুন অরগ্যানিক সাবান, অরগ্যানিক ফেস ওয়াশ ব্যবহার করতে।

গোসলের সময় আয়ুর্বেদিক সাবান ব্যবহার করুন। ঘামের ফলে শরীরে জমা ক্ষতিকারক ব্যাকটেরিয়া দূর হবে। দিনে ২বার ফল বা নিম জাতীয় ফেস ওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। সতেজ থাকার সব থেকে বড় উপায় প্রচুর পানি খাওয়া। তাজা ফলের রস, ডাব খাওয়া দরকার। এর ফলে শরীরে পানির সমতা বজায় থেকে স্বাস্থ্য সতেজ লাগবে। চেহারাতেও যার প্রভাব পড়বে।

অতিরিক্ত ঘামের ফলে শরীর থেকে পানি বেরিয়ে গিয়ে শরীর ক্লান্ত লাগে। অনেকে আবার অতিরিক্ত ঘামের দুর্গন্ধে ভোগেন। ঘাম ও দুর্গন্ধের হাত থেকে রেহাই পেতে প্রচুর শাকসবজি ও ফল খাদ্য তালিকায় রাখা দরকার। বিশেষ করে শসা। এই গরমে নিয়মিত ফল, শসা খাওয়ার ফলে ঘাম কমবে, তৃষ্ণাও কম লাগবে। ঘামের দুর্গন্ধও কম হবে।

রোজ ওয়াটার স্প্রে, অ্যালোভেরা জেল, ওয়েট টিস্যু জাতীয় জিনিস ব্যাগে রাখা দরকার। যখনই ক্লান্ত লাগবে ওয়েট টিস্যু দিয়ে মুখ মুছে নিয়ে রোজ ওয়াটার স্প্রে করে নিন বা অ্যলোভেরা জেল লাগিয়ে নিন।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/রুমা

উপরে