আপডেট : ২৩ মার্চ, ২০১৬ ১০:৫৩

কেমন হওয়া উচিত আপনার চোখের সাজ

অনলাইন ডেস্ক
কেমন হওয়া উচিত আপনার চোখের সাজ

মানব দেহে চোখ অমূল্য সম্পদ। আবার অনেকে বলেন চোখ নাকি মনের কথা বলে। রূপ-সৌন্দর্যের প্রকাশে চোখ তো একটা বড় ব্যাপার। তাই চোখের সাজটি হওয়া চাই নিখুঁত ও সুন্দর। স্থান-কাল বুঝেও চোখকে সাজাতে হবে। কাজল, আইলাইনার বা সুরমা টেনে চোখকে করে তুলতে পারেন নজরকাড়া। চোখের আকারের ওপর নির্ভর করে চোখের সাজ। দেখে নিন কেমন চোখের জন্য চাই কেমন সাজ-

চোখ যদি হয় কিছুটা কোটরের ভেতর ঢোকানো তাহলে আইশ্যাডো হওয়া চাই হালকা। চোখের পাতা ও ভেতরের দিকে হালকা আইশ্যাডো দিতে হবে। একটু গাঢ় আইশ্যাডো লাগান পাতার ওপরে, ভ্রুর নিচে। মাঝারি রং থেকে আরও একটু গাঢ় রঙের আইশ্যাডো লাগান চোখের বাইরের কোণে, একটু বাইরের দিকে টেনে। ভ্রুর নিচে একদম হালকা রঙের আইশ্যাডো দিয়ে হাইলাইট করুন। আর ভ্রু যেখানে শেষ হয়, সেই লাইনটাতে খুব সরু করে সাদা আইশ্যাডো লাগান। এবার চিকন আইলাইনার বা কাজল চোখের ওপরের পাতায় নিয়ে বাইরের কোণ পর্যন্ত টেনে দিন। নিচের পাতায় চাইলে খুব সরু করে কাজল নিতে পারেন। নিচের পাতায় কাজল না দিয়ে শুধু মাশকারা লাগিয়ে নিতে পারেন।
চোখের ওপরের পাপড়িতেও মাশকারা দিতে পারেন। এতে আপনার চোখ বড় ও সজীব সুন্দর দেখাবে। এ ধরনের চোখের পাতায় ও কোটরের ওপরের অংশজুড়ে খুব গাঢ় আইশ্যাডে লাগাবেন না। এতে চোখ আরও ভেতরের দিকে মনে হবে।

দুই চোখের মাঝখানে দুরত্ব বেশি থাকলে চেষ্টা করুন মেকআপের মাধ্যমে দুরত্ব কমিয়ে আনতে। চোখের ভেতরের কোনার দিকে গাঢ় রঙের শ্যাডো দিতে পারেন। আবার যাদের দুই চোখের মাঝখানে দুরত্ব কম, তারা মেকআপের সময় চোখের বাইরের কোনার দিকে গুরুত্ব বেশি দিন।

দুই চোখের মাঝে দূরত্ব কম হলে চোখের পাতার ভেতরের অংশে হালকা আইশ্যাডো দিন মাঝ বরাবর। এবার মধ্যাংশ থেকে বাইরের দিকে গাঢ় রঙের আইশ্যাডো দিন। দুটো রং ভালো করে মিলিয়ে দিন চোখের ওপরে।
গাঢ় রঙের আইশ্যাডো চোখের কোণের বাইরে টেনে দিয়ে নিচের অংশের মাঝ বরাবর দিতে পারেন। আইলাইনার বা কাজল চোখের ভেতরের অংশ থেকে চোখের কোণের বাইরে পর্যন্ত টেনে দিন। বাইরের অংশটিতে একটু গাঢ় বা মোটা করে, একটু ওপরের দিকে টেনে দিতে পারেন। এভাবে আপনার চোখ টানা-টানা ও সুন্দর দেখাবে।

চোখের আকার যদি হয় নিচের দিকে নামানো আইশ্যাডো ওপরে এবং বাইরের দিকে টেনে দিতে হবে। চোখের ভেতরের অংশে হালকা ও বাইরের কোণ থেকে নিয়ে মধ্যভাগ পর্যন্ত গাঢ় আইশ্যাডো দিন। খেয়াল রাখবেন, ওপরের অংশের গাঢ় আইশ্যাডো যেন টেনে নিচে নামিয়ে না আনা হয়। এবার চোখের ভেতরের অংশ থেকে আইলাইনার বা কাজল টেনে বাইরের অংশ পর্যন্ত দিয়ে একটু ওপরের দিকে ছড়িয়ে দিন। মধ্যভাগ থেকে বাইরের কোণ পর্যন্ত একটু মোটা করে নিন আপনার কাজল। চোখের নিচের পাতায় হালকা কাজল দিয়ে বাইরের কোণটি ওপরের কোণের সঙ্গে একটু ওপরে টেনে মিলিয়ে নিন। চোখের ওপরের পাতার পাপড়িতে ঘন করে মাশকারা লাগিয়ে নিন।

চোখ যদি চিকন ধরনের হয় চোখের পাতার ভেতরের অংশে হালকা শ্যাডো দিন। বাইরের অংশে গাঢ় শেড দিয়ে ভালো করে ব্লেন্ড করে নিন। আইলাইনার বা কাজল চোখে খুব একটা টেনে দেওয়ার প্রয়োজন নেই। তাতে চোখ আরও লম্বা দেখাবে। হালকা লাইনার বা কাজল অথবা এর বদলে কালো আইশ্যাডো দিয়ে ঘন করে মাশকারা নিতে পারেন।

যাদের চোখ ফোলা ধরনের চোখের পাতার ভেতরের অংশে হালকা, চোখের কোণ ও কোটরের ওপর গাঢ় আইশ্যাডো দিয়ে চোখের ফোলা ভাব কমাতে পারেন। মোটা করে কাজল বা আইলাইনারও লাগিয়ে চোখের ফোলা ভাব কমানো যায়।

চোখ যদি মাঝারি আকারের হয় আইলইনার বা কাজল চোখের ভেতরের কোণ থেকে টেনে নিয়ে বাইরের কোণ পর্যন্ত লাগান। ভেতরের দিকে ওপরের ও নিচের পাতায় কাজল দিয়ে চোখ টেনে এঁকে নিন। আবার বাইরের কোণেও একটু বাড়িয়ে ওপর দিকে কাজল দিন। চোখের নিচের পাতার মাঝ থেকে বইরের অংশ পর্যন্ত একটু মোটা করে ওপর দিকে টেনে কাজল দিন। এতে চোখ টানা টানা ও ভাসা ভাসা লাগবে।

মেকআপের পূর্বে চোখের মেকআপ শুরু করার আগে চোখ ভালো করে ধুয়ে নেবেন। চোখের ওপরে নিচে ভালো করে ফাউন্ডেশন বোল্ড করে নিতে হবে। চোখের নিচে কালি থাকলে কনসিলার লাগিয়ে নিন। খেয়াল রাখুন তা যেন ত্বকের রঙের সঙ্গে মিশে যায়। এরপর শ্যাডো দিয়ে চোখের বেইস তৈরী করতে হবে। চোখের পাতার নীচের ভাগ ভালো করে ব্লেন্ড করতে হবে। মনে রাখতে হবে ভালো করে ব্লেন্ড না হলে চোখের সাজ পরিপূর্ণ হবে না, এটা চোখের সাজের সব চাইতে প্রধান বিষয়।

চোখ টানা টানা দেখাতে গাঢ় শেডের শ্যডো চোখের কোণে লাগান ভি শেপ করে লাগিয়ে ভালো করে বোল্ড করে নিন। এরপর হালকা প্যাস্টেল শেডের কালার ব্যবহার করুন চোখের বাকি পাতাজুড়ে। ভ্রুর নিচের উঁচুমতো জায়গাটা হাইলাইট করুন সিলভার বা গোল্ডেন টাইপের শেড দিয়ে। এতে চোখটা আকর্ষণীয় লাগবে।

চোখ যদি বড় দেখাতে চান লাইনার দেওয়ার সময় তা একটু টেনে নিয়ে আসুন চোখের বাইরে পর্যন্ত। চোখের নিচে ভেতরের দিকে কাজল দেবেন না, এতে চোখ আরো ছোট দেখাবে।

মাশকারা ও আইলাইনার লাগানোর সময় খেয়াল রাখুন একটা পাপড়ির সঙ্গে আরেকটা যেন জড়িয়ে না যায়।দুই চোখের মধ্যে দূরত্ব কম হলে নাকের কাছাকাছি চোখের ভেতর দিক থেকে বাইরের দিকে হালকা রঙের শ্যাডো লাগালে চোখ দুটি বিস্তৃত দেখাবে। আর যদি চোখের দূরত্ব বেশি হয় তাহলে রং মিশিয়ে চোখের ভেতরের দিকের কোনায় লাগান। চোখের পাতা ঘেঁষে সরু করে আইলাইনার দিন।

মেকআপের কাজ শেষ হয়ে গেলে এই আই মেকআপ ভালো করে তুলে ফেলুন। সে ক্ষেত্রে অলিভ অয়েল কটন প্যাডে নিয়ে আস্তে করে ঘষে তুলে ফেলুন। এরপর ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

উপরে