আপডেট : ৮ মার্চ, ২০১৬ ১৮:৩১

ফ্যাশনে রোদচশমা, আপনাকে দেখাবে আরো স্মার্ট

অনলাইন ডেস্ক
ফ্যাশনে রোদচশমা, আপনাকে দেখাবে আরো স্মার্ট

শুধু রোদ থেকে বাঁচতেই রোদচশমা প্রয়োজন তা নয়। একই সঙ্গে এটি ফ্যাশন অনুষঙ্গও। রোদচশমা পরতে কোন উপলক্ষ লাগে না। চলতি ফ্যাশন হিসেবে সব ঋতুতেই থাকে এটি।

কিন্তু যাঁদের চোখে পাওয়ারের চশমা পরতে হয়, তাঁরা কি কেতাদুরস্ত রোদচশমায় চোখ ঢাকবেন না! তাঁরাও চাইলে পরতে পারেন হাল ফ্যাশনের যেকোনো রোদচশমা। শুধু প্রয়োজন অনুসারে চোখের পাওয়ারের সঙ্গে মিল রেখে পরিবর্তন করে নিন রোদচশমার কাচটি। এতে রথ দেখাও হবে, সঙ্গে কলা বেচাও! বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ-উপাচার্য চক্ষু বিশেষজ্ঞ শরফুদ্দিন আহমেদ জানালেন, ‘চোখের সুরক্ষার জন্য রোদচশমা ব্যবহার করতেই পারেন। এটি ক্ষতিকারক অিত বেগুনী রশ্মির প্রভাব থেকে চোখকে সুরক্ষা দেয়। নিয়মিত ব্যবহারে অনেক রোগও এড়ানো সম্ভব। এ ছাড়া মানসম্মত কাচের তৈরি চশমায় প্রয়োজনমতো পাওয়ার বসিয়ে নিতে পারেন। তবে সস্তা প্লাস্টিকের চশমা চোখের জন্য ক্ষতিকর এবং ভেঙে গিয়ে দুর্ঘটনারও আশঙ্কা থাকে। চক্ষু বিশেষজ্ঞের পরামর্শ মেনে চশমা পরুন। চোখের যত্ন নিন, চোখ আপনার যত্ন নেবে।’
গরমের তীব্রতা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়ছে রোদের তাপ। রোদচশমা শুধু তীব্র সূর্যালোক থেকেই চোখের সুরক্ষা দেয় না। সেই সঙ্গে ধুলা থেকেও চোখকে বাঁচায়। যাঁদের ধুলায় অ্যালার্জি, তাঁদের জন্য রোদচশমা শুধু ফ্যাশন নয়, অত্যাবশ্যকীয়ও বটে। চোখের সংক্রমণ এড়াতেও পরতে পারেন চশমা। চোখে যদি পাওয়ারের চশমা দরকার হয়, ব্যবস্থাপত্র নিয়ে হাজির হয়ে যান দোকানে। চোখের আরামও হবে, সঙ্গে ফ্যাশনও। বসুন্ধরা লেভেল-৫-এর লুক এক্সক্লুসিভের স্বত্বাধিকারী মো. জাহাঙ্গীর আলম জানালেন, ‘চলতি ফ্যাশন হিসেবে এখন ছেলেদের ক্লাব মাস্টার আর মেয়েদের ক্যাটস আই, রিমলেস ফ্রেম বেশি চলছে। ফ্যাশনেবল রোদচশমায় প্রেসক্রিপশন অনুযায়ী আমরা পাওয়ারও যুক্ত করে দিতে পারি।’
যাঁরা বাইকে ঘোরেন তাঁদের জন্য এই রোদচশমা অতি জরুরি। তীব্র গতিতে বাইক ছুটে চলার সময়, বাতাসে ভেসে বেড়ানো ধুলা এসে চোখে আঘাত করে। এই অনাবশ্যক ক্ষতি এড়াতে পরে নিন রোদচশমা। আর যাঁরা সাইকেল কিংবা স্কেটিং করেন, চোখের সুরক্ষায় তাঁরাও পরতে পারেন হাল ফ্যাশনের রোদচশমা।
এখন রোদচশমায় গাঢ় রং খুব ট্রেন্ডি। নীল, সবুজ, লাল, কমলার মতো রঙের প্রাধান্য দেখা যায়। চাইলে কয়েকটা শেডেরও রোদচশমা মিলবে। অনুষ্ঠানভেদে রোদচশমায় বৈচিত্র্য আনতে পারেন। ক্লাব মাস্টার ফ্রেম ফরমাল কিংবা ঘরোয়া দুই ধরনের অনুষ্ঠানেই মানিয়ে যায়। আর এভিয়েটর ফ্রেম ফরমাল পোশাকেই বেশি মানানসই। মুখের গড়ন ও চুলের স্টাইলের সঙ্গে মিল রেখে বেছে নিন আপনার পছন্দের রোদচশমাটি। সঙ্গে দরকারমতো পাওয়ারটিও যুক্ত করে নিন।
ব্র্যান্ড ভেদে রোদচশমার দামের পার্থক্য হয়। বিখ্যাত ব্র্যান্ডগুলোর কপি পাওয়া যাবে ২৫০০ থেকে ১২০০০-এর মধ্যে। নন-ব্র্যান্ডের রোদচশমা সর্বোচ্চ ৩০০ থেকে ১০০০ টাকার মধ্যেই মিলবে।

উপরে